রাজ্যে বিজেপির সম্ভাব্য প্রার্থী কারা তা নিয়ে জোর জল্পনা শুরু হয়েছে গেরুয়া শিবিরের অন্দরে। দীর্ঘদিন দল করা নেতা-নেত্রীরা কতজন টিকিট পাবেন, আর অন্য দল থেকে যোগ দেওয়া কতজন টিকিট পাবেন তা নিয়েই এখন গুঞ্জন রাজ্য বিজেপিতে।
শুক্রবার রাজ্য বিজেপির ইলেকশন কমিটির বৈঠক। সেই বৈঠকে সম্ভাব্য প্রার্থীদের নামের তালিকা নিয়ে আলোচনা হবে ঠিকই, কিন্তু রাজ্য বিজেপি নেতারা নিশ্চিতভাবেই জানেন, সব কিছুই নির্ভর করছে দিল্লির ওপর।
এখনও পর্যন্ত যাঁরা তৃণমূল বা অন্য দল থেকে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন তাঁরা প্রায় অধিকাংশই টিকিট পাবেন বলেই খবর গেরুয়া শিবিরের। পাশাপাশি, গত লোকসভা ভোটে লড়াই করা একাধিক নেতা-নেত্রীকেও প্রার্থী করার ভাবনা রয়েছে দলের।
সূত্রের খবর, বৃহস্পতিবারই দলে যোগ দেওয়া তৃণমূল বিধায়ক অর্জুন সিংহের বারাকপুর কেন্দ্রে বিজেপির টিকিট পাওয়া একপ্রকার নিশ্চিত। তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যাওয়া সৌমিত্র খাঁ সম্ভবত প্রার্থী হবেন বিষ্ণুপুরে। বোলপুরের সম্ভাব্য বিজেপি প্রার্থী অনুপম হাজরা। উত্তর কলকাতায় সম্ভাব্য প্রার্থী রাহুল সিংহ। দমদম কেন্দ্রকে অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করছে বিজেপি। এই কেন্দ্রে শমীক ভট্টাচার্যকে প্রার্থী করার একটা ভাবনা রয়েছে দলের একাংশের। বারাসত কেন্দ্রের প্রার্থী সম্ভবত বিশ্বজিৎ চট্টোপাধ্যায়। অভিনেতা বিশ্বজিৎ সম্প্রতি দিল্লিতে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। প্রাক্তন আইপিএস অফিসার ভারতী ঘোষকেও প্রার্থী করতে চায় বিজেপি। গত কয়েক বছর ধরে ধারাবাহিক আন্দোলন কর্মসূচিতে থাকা লকেট চট্টোপাধ্যায়ও প্রার্থী হচ্ছেন। কিন্তু তিনি বীরভূম কেন্দ্রেই লড়বেন, না তাঁর জন্য অন্য কোনও আসন বাছা হবে তা নিয়ে আলোচনা চলছে।
বিজেপি শিবিরের দাবি, দু’এক দিনের মধ্যেই আরও কয়েকজন নেতা তৃণমূল ছেড়ে তাদের দলে যোগ দিতে পারেন। সম্ভবত সামনের সপ্তাহের গোড়াতেই এরাজ্যের জন্য প্রথম দফার প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করতে পারে গেরুয়া শিবির। দক্ষিণ কলকাতা এবং অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডায়মন্ডহারবার কেন্দ্রে চমক দিতে চাইছে বিজেপি। বিজেপি শিবির সূত্রের খবর, তৃণমূল ছেড়ে দলের যোগ দেওয়া কাউকে ডায়মন্ডহারবারে প্রার্থী করা হতে পারে।

You may also like