চলতি বছরের মার্চ মাসের কথা। সিনেপ্রেমীদের মধ্যে প্রায় দাবানলের মতো ছড়িয়েছিল খবরটা। অভিনেতা ইরফান খান মস্তিষ্কের জটিল ব্যাধিতে আক্রান্ত। একটি বার্তার মাধ্যমে সে সময় ভক্ত ও অনুরাগীদের নিজেই একথা জানিয়েছিলেন ইরফান। পরে জানা যায়, নিউরো এন্ড্রোক্রাইন টিউমার নামক মস্তিষ্কের একটি জটিল ও বিরল রোগ দানা বেঁধেছে ইরফানের শরীরে। লন্ডনে তাঁর চিকিৎসা চলছে। এর বাইরে বিষয়টি নিয়ে সে সময় বিশেষ মুখ খোলেননি ইরফান বা তাঁর পরিবারের সদস্যরা।

বিষয়টি জানাজানি হওয়ার তিন মাস পর অবশেষে নিজের শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে মুখ খুললেন ইরফান খান। সম্প্রতি ‘টাইমস অফ ইন্ডিয়া’ সংবাদপত্রকে একটি সাক্ষাৎকার দিয়েছেন ইরফান। সেখানে তিনি জানিয়েছেন, বেশ কিছু মাস ধরে তিনি জটিল নিউরো এন্ড্রোক্রাইন ক্যান্সারে আক্রান্ত। এই রোগ সম্পর্কে তার কোনও ধারণা ছিল না। নিউরো এন্ড্রোক্রাইন ক্যান্সার শব্দটাই তাঁর কাছে নতুন। তাঁর কথায়, এই রোগটি এতটাই বিরল যে এ-সম্পর্কে বিশেষ কোনও তথ্যও চিকিৎসরা তাঁকে দিতে পারেননি। তাই এই রোগের চিকিৎসার ধরন বা পন্থা নিয়ে নিশ্চিত করে কিছু বলা সম্ভব নয়। ইরফান জানিয়েছেন, ক’দিনের জন্য তিনি বুঝতেও পারেননি কোন পথে সঠিক চিকিৎসা করা সম্ভব।
লন্ডনের হাসপাতালে তাঁর চিকিৎসার প্রসঙ্গেও মুখ খুলেছেন এই অভিনেতা। জানিয়েছেন, প্রথম যেদিন ভয়-আতঙ্ক নিয়ে তিনি হাসপাতালে গিয়েছিলেন, সেদিন ছেলেকে বলেছিলেন, এমন কোনও অপ্রত্যাশিত আঘাত যেন না আসে, যা শুনে তিনি নিজের পায়েই আর দাঁড়ানোর শক্তি না পান। মনে মনে প্রার্থনা করছিলেন, ভয় আর আতঙ্ক যেন তাঁকে গ্রাস না করতে পারে। ইরফান জানিয়েছেন, এক সময় যখন ভেঙে পড়েছিলেন এই জটিল রোগের কথা শুনে, তখন মনে মনে নিজেকে এই বলে সান্তনা দিয়েছিলেন যে, ‘আত্মশক্তির উপর বিশ্বাস রাখা এবং নিজের লড়াই চালিয়ে যাওয়া ছাড়া আমার হাতে আর কিছু নেই।’ ইরফান জানিয়েছেন এখন তাঁর সমস্ত বিষয়ে ভাবনা পিছনের সারিতে চলে গেছে, এখন তিনি বুঝতে পারছেন স্বাধীনতার আসল মানে কী।

You may also like