অকংগ্রেসি-অবিজেপি জোট গড়ার লক্ষ্যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠক করলেন তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও। সোমবার বিকেলে নবান্নে গিয়ে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করেন কে সিআর। এর আগেও কয়েক মাস আগে নবান্নে এসে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করেছিলেন তিনি। বৈঠকের পর সাংবাদিক সম্মেলনে কে সিআর বলেন, আগামী এক মাসের মধ্যে ফেডারেল ফ্রন্ট গড়ার প্রস্তুতি চূড়ান্ত আকার নেবে। তিনি আশাবাদী, বিজেপি এবং কংগ্রেসকে বাইরে রেখে এই ফ্রন্ট দেশের সরকার গড়ার ক্ষেত্রে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা নেবে।

কংগ্রেস যখন বিজেপি বিরোধী দলগুলিকে একত্রিত করে ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচন লড়ার জন্য মোদীর বিরুদ্ধে লড়ার কথা ভাবছে, তখন টিআরএস প্রধান এবং তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও কংগ্রেস বা বিজেপি কারও সঙ্গেই যোগ না দিয়ে ফেডারেল ফ্রন্ট গড়ার উদ্যোগ নিয়েছেন।
রবিবার, এই লক্ষ্যে কে সি আর দেখা করেন ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়েকের সঙ্গে। এছাড়াও, উত্তর প্রদেশের মায়াবতী ও অখিলেশ যাদবের সঙ্গেও সাক্ষাতের সম্ভাবনা রয়েছে কে সি আরের। আর এজন্য বিশেষ বিমান ভাড়া করেছেন তিনি। বিজেপি এবং কংগ্রেস বিরোধী দলগুলিকে এক ছাতার নীচে আনতে এক মাস ধরে বিভিন্ন রাজ্যে সফর করবেন কে সি আর। সেই কর্মসূচির অঙ্গ হিসেবেই সোমবার মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করতে এরাজ্যে এলেন তিনি।
চন্দ্রশেখর যে সাত দিনের সফর শুরু করেছেন, তার প্রথমেই তিনি উড়ে গিয়েছেন ভুবনেশ্বরে। দু’দশক ধরে ওড়িশা শাসন করছেন নবীন পট্টনায়েক। বিজেপির সঙ্গে তাঁর চলছে ঠান্ডা যুদ্ধ। আর কংগ্রেসের সঙ্গেও রয়েছে দূরত্ব। তাই সফরের শুরুতেই নবীনের সঙ্গে তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রীর সাক্ষাৎ বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ। রবিবার বৈঠক শেষে নবীন সাংবাদিক সম্মেলনে জানান, কে সি আরের তেলেঙ্গানা জয়ে তিনি প্রচণ্ড খুশি। এজন্য, কে সি আরকে সাংবাদিকদের উপস্থিতিতে শুভেচ্ছা জানান তিনি।