ভারতের বিরুদ্ধে সে দেশে জঙ্গি হামলা চালানোর বেনজির অভিযোগ আনল পাকিস্তান।
করাচির চিনা দূতাবাসে হামলার ঘটনায় ভারতের গোয়েন্দা সংস্থা রিসার্চ অ্যান্ড অ্যানালিসিস উইং (র) কে কাঠগোড়ায় তুলল পাকিস্তান। শুক্রবার করাচির মুখ্য পুলিশ আধিকারিক ডঃ আমির আহমেদ শেখ এক সাংবাদিক বৈঠকে জানান, চিনা দূতাবাসে হামলার ছক কষা হয় আফগানিস্তানে এবং ওই ছকে মদত দিয়েছিল ভারতের ইন্টিলেজেন্স সংস্থা ‘র’।
চিনা দূতাবাসে হামলায় জড়িত থাকার সন্দেহে এপর্যন্ত ৫ জনকে গ্রেফতার করেছে করাচি পুলিশ। তাদের তদন্ত পুলিশ জেনেছে, চিন ও পাকিস্তানের সম্পর্কে চিড় ধরাতেই এই ষড়যন্ত্র করেছিল সন্ত্রাসবাদীরা। আর তাতে মদত দেয় ‘র’। হামলাকারীরা চিনকে বোঝাতে চেয়েছিল, পাকিস্তান নিরাপদ নয়, দাবি করাচির মুখ্য পুলিশ আধিকারিকের।
সাংবাদিক বৈঠকে ডঃ আমির আহমেদ শেখ জানান, করাচির চিনা দূতাবাসে চার মাসের বেশি সময় ধরে পাখির চোখ রেখেছিল সন্ত্রাসবাদীরা । দূতাবাসের ভিসা সেকশনে মাঝে-মধ্যেই কয়েকজন নানা অছিলায় এসে দেখে যেত নিরাপত্তা ব্যবস্থা। এরপর, কোয়েটা থেকে করাচিতে ট্রেনে করে আনা হয় অস্ত্রশস্ত্র। হামলাকারীরা নকল পরিচয়পত্র বানিয়ে করাচির বলদিয়া এলাকার একটি বাড়িতে ঘাঁটি গাড়ে। এই হামলার মূল ষড়যন্ত্রকারী হিসেবে আফগানিস্তানের কুখ্যাত জঙ্গি আসলাম আলিয়াস আচোর নাম উল্লেখ করেন করাচির পুলিশ অফিসার। যদিও, বেশ কয়েকটি সন্ত্রাসী হামলায় অভিযুক্ত আচোর মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছিল। তবে সেই খবর নস্যাৎ করে করাচির মুখ্য অফিসারের দাবি, নিজেদের মৃত ঘোষণা করে সন্ত্রাস চালানো কুখ্যাত জঙ্গিদের একটা কৌশল।
উল্লেখ্য, গত বছরের ২৩ শে নভেম্বর করাচির চিনা দূতাবাসে জঙ্গি হামলায় ৭ জনের মৃত্যু হয়।