ঠান্ডা যেন না লাগে, অযোধ্যায় গরুর জন্য শীতবস্ত্র কিনছে পুরসভা! গরু ও ষাঁড়ের জন্য পৃথক ডিজাইনের কোট তৈরির বরাত

ঠান্ডার হাত থেকে গরু ও ষাঁড়দের বাঁচাতে পাটের তৈরি বিশেষ জামা কিনছে বিজেপি শাসিত অযোধ্যা পুরসভা। শহরের বিভিন্ন গোশালা ও আশ্রয়স্থলে থাকা গরু ও ষাঁড়ের জন্য আসছে ভিন্ন নকশার কোট। প্রতিটি কোটের খরচ পড়বে ২৫০ থেকে ৩০০ টাকা।
অযোধ্যার নগর নিগমের কমিশনার নীরজ শুক্লা জানান, ইতিমধ্যেই গরুদের কোট তৈরির কাজ শুরু হয়ে গিয়েছে। মোট তিনটি পর্যায়ে এই উদ্যোগ বাস্তবায়িত হবে। প্রথম পর্যায়ে বৈশিঙ্গপুরের গরু, ষাঁড়, বাছুর মিলিয়ে মোট ১,২০০ গবাদি পশুর শীতবস্ত্র কেনা হচ্ছে। এর মধ্যে রয়েছে ৭০০ টি ষাঁড়। আপাতত ১০০ টি গরু ও বাছুরের জন্য পাটের তৈরি জামার বরাত দেওয়া হয়েছে। নীরজ শুক্লা জানান, গরুদের শীতবস্ত্র কেনার প্রথম পর্যায়ের কাজ নভেম্বরের মধ্যেই শেষে হয়ে যাবে। প্রতিটি কোটের দাম পড়ছে ২৫০-৩০০ টাকা। বাছুরদের শীতবস্ত্র তৈরির ক্ষেত্রে বিশেষ নজর দেওয়া হয়েছে। নগর নিগম কমিশনারের কথায়, প্রস্তুতকারকদের খেয়াল রাখতে বলা হয়েছে, বাছুরের কোট যেন বিশেষ নরম হয়। বাছুরদের জামায় তিনটি পাটের স্তর থাকবে এবং গরু ও ষাঁড়দের আলাদা আলাদা নকশার কোট পরানো হবে। ষাঁড়দের কোট তৈরি হবে শুধু পাট দিয়ে। আর গরুর ক্ষেত্রে পাটের ভিতর নরম কোনও স্তর থাকবে যাতে শীতে কোনওরকম কষ্ট না পায় তারা। পাশাপাশি, তীব্র শীতের দিনগুলিতে গো-আশ্রয়গুলিতে বনফায়ারের বন্দোবস্ত থাকবে। মেঝেতে পুরু করে খড় বিছিয়ে রাখা হবে, যাতে গরুরা বসলে ঠান্ডা না লাগে। অযোধ্যা পুরসভার মেয়র হৃষিকেশ উপাধ্যায় বলেন, গো সেবাই আমাদের লক্ষ্য। রাজ্যের সমস্ত গোশালায় গরুর সর্বোচ্চ সুবিধার কথা মাথায় রেখে বিভিন্ন বন্দোবস্ত হচ্ছে।
প্রচুর দরিদ্র মানুষ যখন শীতবস্ত্রের অভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েন, উত্তর ভারতজুড়ে মৃত্যু হয় কয়েক হাজার মানুষের, তখন গরুদের কোট উপহার দেওয়ার সিদ্ধাতের তীব্র সমালোচনায় সরব হয়েছে বিভিন্ন মহল।

 

Comments
Loading...