থানা উদ্বোধনের দিনই রণক্ষেত্র ভাটপাড়া, গুলি-বোমায় মৃত ২, জারি ১৪৪ ধারা, শুক্রবার আসছে বিজেপির প্রতিনিধি দল

নতুন থানার উদ্বোধনের দিনই রণক্ষেত্র ভাটপাড়া সহ বারাকপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিস্তীর্ণ এলাকা। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে মুড়ি মুড়কির মতো পড়ল বোমা, চলল গুলিবৃষ্টি। গুলিবিদ্ধ হয়ে কাঁকিনাড়ায় মৃত্যু দু’জনের। গুরুতর অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি আরও ৫ জন। জারি ১৪৪ ধারা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশকে কড়া ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ নবান্নর।
লোকসভা ভোটের সময় থেকেই বারবার রাজনৈতিক সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়েছে বারাকপুর কেন্দ্রের ভাটপাড়া, কাঁকিনাড়া, জগদ্দল, নৈহাটি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে জগদ্দল থানা ভেঙে ভাটপাড়ায় নতুন থানা তৈরির সিদ্ধান্ত নেয় রাজ্য প্রশাসন। রাজ্য পুলিশের ডিজি বীরেন্দ্রর হাতে সেই ভাটপাড়া থানার উদ্বোধন হওয়ার কথা ছিল বৃহস্পতিবার। কিন্তু সকাল থেকেই গুলি-বোমাবাজিতে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে ভাটপাড়া। গুলিবিদ্ধ হন বেশ কয়েকজন। তাঁদের বারাকপুরের বি এন বসু মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে সেখানে রামবাবু সাউ এবং ধরমবীর সাউ নামে দু’জনের মৃত্যু হয়। পুলিশের গুলিতেই ওই দু’জনের মৃত্যু বলে দাবি স্থানীয়দের একাংশের। একই অভিযোগ করেন স্থানীয় বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংহ। কার গুলিতে মৃত্যু হয়েছে, তা তদন্ত করে দেখা হবে বলে জানিয়েছেন রাজ্য পুলিশের ডিজি। আক্রান্ত হয় পুলিশও। সূত্রের খবর, বারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের এক এসিপির গাড়ি ভাঙচুর করা হয়। আহত হয়েছেন ৬ জন পুলিশকর্মী, জানিয়েছেন রাজ্য পুলিশের ডিজি বীরেন্দ্র।
পরিস্থিতি মোকাবিলায় মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে নবান্নে জরুরি বৈঠকে বসেন প্রশাসনের কর্তারা। থানা উদ্বোধনের জন্য কলকাতা থেকে ভাটপাড়ার উদ্দেশে রওনা দিয়েছিলেন রাজ্য পুলিশের ডিজি বীরেন্দ্র। কিন্তু গোলমালের খবর পেয়ে মাঝ পথ থেকেই ফেরেন তিনি। পরে মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে ফের ভাটপাড়া যান ডিজি। উদ্বোধনের অনুষ্ঠান বানচাল হলেও নব গঠিত ভাটপাড়া থানায় বৈঠক করেন ডিজি বীরেন্দ্র। অন্যদিকে রাজ্য সরকারের তরফে স্বরাষ্ট্র সচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, পরিস্থিতি মোকাবিলায় সমস্ত ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। এডিজি দক্ষিণবঙ্গ সঞ্জয় সিংহকে বারাকপুর কমিশনারেটে বিশেষ দায়িত্ব দিয়ে ভাটপাড়ায় পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন রাজ্য পুলিশের ডিজি। এলাকায় টহল দিচ্ছে বিশাল পুলিশ বাহিনী। স্বাভাবিক অবস্থা ফেরাতে পুলিশের তরফে চলছে মাইকিং।
এই ঘটনা নিয়ে তৃণমূল-বিজেপি চাপানউতোর তুঙ্গে। গোলমালের খবর পাওয়ার পরই ভাটপাড়ায় কেন্দ্রীয় দল পাঠানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিজেপি। শুক্রবার বিজেপির দল ভাটপাড়া পরিদর্শন করে রিপোর্ট দেবে অমিত শাহকে। এদিকে পুলিশের বিরুদ্ধে গুলি চালানোর অভিযোগ করেছেন বারাকপুরের সাংসদ অর্জুন সিংহ, উল্টোদিকে গোলমালের দায় বিজেপির উপর চাপিয়েছেন তৃণমূল নেতা মদন মিত্র।

Comments are closed.