আইএনএক্স মামলায় চিদম্বরমের আগাম জামিনের আবেদন খারিজ, এবার কি গ্রেফতার কংগ্রেস নেতা?

আইএনএক্স মিডিয়া কেলেঙ্কারি মামলায় প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী এবং কংগ্রেস নেতা পি চিদম্বরমের আগাম জামিনের আবেদন খারিজ করল দিল্লি হাইকোর্ট। মঙ্গলবার আইএনএক্স মিডিয়া মামলায় দিল্লি হাইকোর্টের কাছে আইনজীবী কপিল সিব্বলের মাধ্যমে ফের আগাম জামিনের আবেদন করেছিলেন পি চিদম্বরম। এদিন আগাম জামিন ছাড়াও সুপ্রিম কোর্টে এই মামলার দ্রুত শুনানির জন্য দিল্লি হাইকোর্টের কাছে আবেদন করেন চিদম্বরম। তাঁর আবেদনের বিরোধিতা করে সিবিআই ও ইডি। এরপর চিদম্বরমের দুটি আবেদনই খারিজ করে দেন দিল্লি হাইকোর্টের বিচারপতি সুনীল গৌর।
এরপর পি চিদম্বরম আগামী ৩ দিনের জন্য তাঁর গ্রেফতারিতে অন্তর্বতীকালীন সুরক্ষার আবেদন করেন। সে আবেদনও প্রত্যাখ্যান করে দিল্লি হাইকোর্ট। প্রাক্তন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর আবেদন খারিজের সময় দুটি বিষয় নির্দেশ করে হাইকোর্ট। এক, এই মামলার গুরুত্ব এবং দুই, বারবার মামলার তদন্ত প্রক্রিয়া এড়ানোর চেষ্টা করেছেন আইএনএক্স মামলায় অভিযুক্ত প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী।
২০০৭ সালে চিদম্বরম যখন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী ছিলেন, সেই সময় ৩০৫ কোটি টাকার বিদেশি অনুদানে আইএনএক্স মিডিয়াকে ফরেন ইনভেস্টমেন্ট প্রোমোশন বোর্ড (এফআইপিবি) ছাড়পত্র দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগে ওঠে। এই অভিযোগে ২০১৭ সালের ১৫ ই মে এফআইআর দায়ের করে সিবিআই। পরে মামলার তদন্তে নেমে ইডি জানতে পারে, এফআইপিবি ছাড়পত্রের জন্য পি চিদম্বরমের সঙ্গে দেখা করেন আইএনএক্স মিডিয়ার প্রধান পিটার মুখার্জি ও ইন্দ্রাণী মুখার্জি। পি চিদম্বরমের পুত্র কার্তি চিদম্বরম ও আইএনএক্স মিডিয়ার প্রধান পিটার মুখার্জি ও ইন্দ্রাণী মুখার্জির বিরুদ্ধে অপরাধমূলক ষড়যন্ত্রের অভিযোগ আনে সিবিআই।
এই ঘটনার তদন্তে গত বছরের ২৮ শে ফেব্রুয়ারি চিদম্বরম পুত্রকে কার্তিকে গ্রেফতার করেছিল সিবিআই। পরে জামিনে মুক্ত হন তিনি। এই মামলায় চিদম্বরমের ছেলের চার্টার্ড অ্যাকাউন্ট্যান্ট এস ভাস্করারমনকেও গ্রেফতার করা হয়। তাছাড়া এ বছরের জানুয়ারি মাসে ও গত ১৯ শে ডিসেম্বর চিদম্বরমকে জিজ্ঞাসাবাদ করেছিল ইডি। সে সময় তদন্তকারী সংস্থা তাঁকে গ্রেফতার করতে চাইলে আগাম জামিন নেন পি চিদম্বরম।

Comments
Loading...