নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের প্রতিবাদে অসম, ত্রিপুরায় তুমুল বিক্ষোভ, মুখ্যমন্ত্রী সোনয়ালকে কালো পতাকা

সংসদে নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পেশের দিনই বিক্ষোভ ও আন্দোলনে উত্তাল হয়ে উঠল অসম সহ উত্তর-পূর্বাঞ্চল। অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনওয়াল থেকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী রামেশ্বর তেলি-সহ বিজেপি নেতা ও তার জোটসঙ্গী দলের একাধিক নেতাকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখান আন্দোলনকারীরা। বিজেপি বিধায়ক ও নেতাদের অফিসে ভাঙচুরও চালানো হয়। বিলের প্রতিবাদে মঙ্গলবার ১২ ঘণ্টার বনধ ডেকেছে নর্থ-ইস্ট স্টুডেন্টস অর্গানাইজেশন (এনইএসও)। এই বনধের জেরে বিভিন্ন স্কুল-কলেজে পরীক্ষা মুলতবি ঘোষণা হয়েছে।
অ-মুসলিম শরণার্থীদের এ দেশে নাগরিকত্ব দেওয়ার বিরোধিতায় গত কয়েক দিন ধরে আন্দোলন চলছে অসম, ত্রিপুরায়। রবিবার ত্রিপুরার সাহিত্য, শিল্প ও সংস্কৃতি জগতের একাধিক ব্যক্তিত্ব কেন্দ্রের নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরোধিতায় রাস্তায় পা মেলান। বিলের বিরোধিতায় বিজেপির সদস্যপদ ছেড়েছেন বিখ্যাত অসমীয়া অভিনেতা রবি শর্মা।
মুখ্যমন্ত্রী সোনওয়াল সোমবার কোলিয়াবরে একটি অনুষ্ঠানে যাওয়ার পথে বিক্ষোভের মুখে পড়েন। তাঁকে কালো পতাকা দেখানো হয়। একসময় ছাত্র নেতা থেকে মুখ্যমন্ত্রী হওয়া সর্বানন্দ সোনওয়াল বলেন, এই আন্দোলন করে জীবনের অমূল্য সময় নষ্ট না করে যুব সম্প্রদায়ের উচিত সময়কে কাজে লাগানো। এই ধরনের আন্দোলন যুবকদের বিপথে চালনা করছে। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা রামেশ্বর তেলিকে ডিব্রুগড়ে ঘেরাও করে বিক্ষোভ দেখায় আন্দোলনকারীরা। বনগাইগাঁওয়ে একই পরিস্থিতির মুখোমুখি হন অসম গণ পরিষদের নেতা তথা অসমের মন্ত্রী ফণীভূষণ চৌধুরী। এছাড়া অসমের জায়গায় বিভিন্ন নেতা-মন্ত্রীরা জনতার রোষে পড়েন।
টানা ছ’ বছর অসম আন্দোলনের যাদের হাত ধরে তীব্রতা পেয়েছিল, সেই প্রভাবশালী ছাত্র সংগঠন আসু-র তরফে আলাদাভাবে রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় বিক্ষোভ কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। কেন্দ্রের নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরোধিতায় ফের বড় আন্দোলনের পথে অসম সহ উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলি। আগরতলায়ও বিলের প্রতিবাদে বিক্ষোভ চলছে গত দু’দিন ধরে।

 

Comments
Loading...