লোকসভায় খারাপ ফল: জাতীয় দলের মর্যাদা কি হারাতে পারে তৃণমূল? নোটিস পাঠালো নির্বাচন কমিশন, সূত্রের খবর

লোকসভা ভোটে খারাপ ফলের জেরে কি এবার জাতীয় দলের মর্যাদা হারাতে চলেছে তৃণমূল? সূত্রের খবর, গত বৃহস্পতিবার এই মর্মে জাতীয় নির্বাচন কমিশন নোটিস পাঠিয়েছে তৃণমূল, শরদ পওয়ারের এনসিপি এবং সিপিআইকে। সূত্রের খবর, কেন তাদের জাতীয় দলের মর্যাদা কেড়ে নেওয়া হবে না, তা আগামী ৫ ই অগাস্টের মধ্যে জানাতে হবে এই তিনটি রাজনৈতিক দলকে।
১৯৬৮ সালের নির্বাচনী প্রতীক সংক্রান্ত নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, জাতীয় দল হিসেবে গণ্য হওয়ার জন্য একটি দলকে ৪ অথবা তার বেশি রাজ্য থেকে লোকসভা এবং বিধানসভায় কম পক্ষে ৬ শতাংশ ভোট পেতে হবে। পাশাপাশি, লোকসভায় সেই দলের অন্তত ৪ জন সদস্য থাকতে হবে। যে কোনও রাজনৈতিক দলকে জাতীয় দলের তকমা পেতে মোট লোকসভা আসনের ২ শতাংশ পেতে হবে। দেশের অন্তত ৩ টি রাজ্য থেকে জয়ী প্রার্থীদের লোকসভায় আসতে হবে। এই বিভিন্ন মাপকাঠিতে এবার তৃণমূল, এনসিপি এবং সিপিআই স্বীকৃত জাতীয় দলের মর্যাদা হারাতে পারে বলে নির্বাচন কমিশন সূত্রে খবর। এই মুহূর্তে দেশে জাতীয় দলের সংখ্যা ৭, তারা হল বিজেপি, কংগ্রেস, তৃণমূল, বিএসপি, সিপিআই, সিপিএম এবং এনসিপি।
২০১৪ লোকসভা ভোটে রাজ্যের ৪২ টি আসনের মধ্যে তৃণমূল একাই জিতেছিল ৩৪ টি আসন। ২০১৯ সালে রাজ্যে মাত্র ২২ টি আসন পায় তারা। কিন্তু ২০১৪ সালে পশ্চিমবঙ্গ ছাড়াও অসম, অরুণাচল প্রদেশ, ত্রিপুরায় ভালো ভোট পেয়েছিল তৃণমূল। এবার ২০১৯ লোকসভা ভোটে পশ্চিমবঙ্গে ২২ টি আসন পেলেও অন্যান্য রাজ্যে তৃণমূলের ঝুলি কার্যত শূন্য। সেই কারণেই তাদের জাতীয় দলের মর্যাদা চলে যেতে পারে বলে নির্বাচন কমিশন সূত্রে খবর।
অন্যদিকে, এবারের লোকসভা ভোটে মুখ থুবড়ে পড়েছে সিপিআই এবং এনসিপিও। যদিও ২০১৪ সালেই এই দুই দলের জাতীয় দলের মর্যাদা হারানোর পরিস্থিতি তৈরি হয়েছিল। কিন্তু সেই সময় জাতীয় দল মূল্যায়ন করার প্রক্রিয়া ৫ বছর থেকে বাড়িয়ে ১০ বছর করা হয়েছিল। এবার লোকসভা ভোটের পর সিপিআই এবং এনসিপিও জাতীয় দলের মর্যাদা হারাতে পারে বলে কমিশন সূত্রে জানা গিয়েছে।
তৃণমূল অবশ্য কমিশনের নোটিসকে গুরুত্ব দিতে নারাজ। রবিবার একুশে জুলাইয়ের মঞ্চ থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঘোষণা, জাতীয় দলের মর্যাদা না থাকলে না থাকবে, তৃণমূল আন্তর্জাতিক স্তরের দল হিসেবেই থাকবে।
২০১৪ সালে লোকসভা ভোটের ফল প্রকাশের পরই সিপিআই, এনসিপির মতোই মায়াবতীর বিএসপি’ও জাতীয় দলের তকমা হারানোর মুখে পড়েছিল। কিন্তু বহুজন সমাজ পার্টি ১০ টি লোকসভা আসন দখল করেছে। পাশাপাশি, অন্য রাজ্যের বিধানসভাতেও পেয়েছে একাধিক আসন। এর ফলে বহুজন সমাজ পার্টির জাতীয় দলের মর্যাদা অক্ষুণ্ণ থাকছে।
জাতীয় দলের স্বীকৃতি থাকলে সারা দেশে একই প্রতীক, দূরদর্শন, আকাশবাণীতে ফ্রি-টাইম, পার্টি অফিস বানানোর জন্য কম দামে জমি সহ আরও একাধিক সুবিধে পাওয়া যায়।

Comments
Loading...