প্রয়াত ঝাড়গ্রামের বিধায়ক ও বিধানসভার ডেপুটি স্পিকার সুকুমার হাঁসদা, শোক প্রকাশ মুখ্য মন্ত্রী, স্পিকারের

ক্যানসার ও করোনার থাবা! প্রয়াত বিধানসভার ডেপুটি স্পিকার সুকুমার হাঁসদা

ক্যানসারের চিকিৎসার জন্য গত এক সপ্তাহ ধরে বাইপাসের ধারে বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন বিধানসভার ডেপুটি স্পিকার। বৃহস্পতিবার সকালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন ঝাড়গ্রামের বিধায়ক সুকুমার হাঁসদা। হাসপাতাল সূত্রে খবর, আগেই ক্যানসার থাবা বসিয়েছিল তাঁর শরীরে। সেই চিকিৎসা চলাকালীন করোনা সংক্রমিত হন সুকুমারবাবু। হার মানল গত কয়েকদিনের লড়াই। ৬৬ বছর বয়সে প্রয়াত হলেন সুকুমার হাঁসদা।

ডেপুটি স্পিকার তথা ঝাড়গ্রামের বিধায়কের মৃত্যুতে ট্যুইট করে গভীর শোক প্রকাশ করেন মুখ্য মন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি।

হাসপাতালে যাবেন বিধানসভার মার্শাল। করোনা পরিস্থিতিতে এই মুহূর্তে কোনও শোকপ্রকাশ অনুষ্ঠান করা সম্ভব হচ্ছে না। পরে বিধানসভা খোলা হলে আনুষ্ঠানিকভাবে শোক জ্ঞাপন করা হবে।

২০১১ সালে মমতার সরকার ক্ষমতায় এলে পশ্চিমাঞ্চল উন্নয়নমন্ত্রীর দায়িত্ব পান পেশায় চিকিৎসক সুকুমার হাঁসদা। ঝাড়্গ্রাম বিধানসভা থেকে জয়ী হয়েছিলেন তিনি। পরের বার বিধানসভা নির্বাচনে তিনি জিতলেও তাঁকে আর মন্ত্রিসভায় দেখা যায়নি। সংগঠন মজবুত করার দায়িত্ব বর্তায় তাঁর উপর। ২০১৮ সালে প্রাক্তন ডেপুটি স্পিকার হায়দার আজিজ সফির মৃত্যুর পর সেই পদে বসেন ঝাড়গ্রামের বিধায়ক সুকুমার হাঁসদা। মেয়াদ শেষের কয়েক মাস আগেই প্রয়াত হলেন তিনি।

Comments
Loading...