Uttar Pradesh: দুইয়ের বেশি সন্তান থাকলে দাঁড়াতে পারবেন না ভোটে, সরকারি চাকরির প্রোমোশনে বাধা, কঠোর সিদ্ধান্তের পথে যোগী সরকার

দেশের সবথেকে জনবহুল রাজ্য উত্তরপ্রদেশ। রাজ্যের জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে তাই কঠোর পদক্ষেপ করতে চলেছে যোগী আদিত্যনাথের সরকার। সরকারি সূত্রের খবর, রাজ্যের জনসংখ্যা নিয়ন্ত্রণে এবার কঠোরভাবে দুই সন্তান নীতি প্রয়োগ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে যোগী সরকার। এ জন্য নতুন খসড়া নীতি তৈরীর কাজ চলছে।

জানা গিয়েছে, ২ এর অধিক সন্তান থাকলে বাতিল হতে পারে পঞ্চায়েত অথবা স্থানীয় পুরসভার নির্বাচনে প্রার্থী হওয়ার যোগ্যতা। এছাড়াও প্রভাব পড়তে পারে সরকারি চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রেও। সূত্রের খবর, এই নীতির খসরা প্রস্তাবে বলা হয়েছে সে ক্ষেত্রে সরকারি চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে যাদের দুই অথবা তার থেকে কম সন্তান থাকবে সেই সকল আবেদনকারীকেই প্রাধান্য দেয়া হবে। শুধু তাই নয় সরকারি চাকরিতে পদন্নোতির ক্ষেত্রেও প্রভাব ফেলতে পারে এই  বিষয়টিকে।

সূত্রের খবর যোগী আদিত্যনাথ প্রশাসন চাইছে পঞ্চায়েত ভোটের আগেই এই নীতি চূড়ান্ত করে ফেলতে। যাতে পঞ্চায়েত ও স্থানীয় পুরসভার নির্বাচনে তা লাগু করা যায়।

সরকার চাইছে ২০২৫ সালের মধ্যে জন্ম হার বা গ্রস ফার্টিলিটি রেট সার্বিকভাবে ২.১ শতাংশে নামিয়ে আনতে। বর্তমানে শহরে এই জন্ম হার ঠিক থাকলেও গ্রামাঞ্চলে তা প্রায় ৩ শতাংশ। বিষয়টি নিয়ে তাই বিশেষভাবে ভাবিত যোগী সরকার।

সরকারি তথ্য বলছে উত্তরপ্রদেশে বর্তমান জনসংখ্যা প্রায় ২২ কোটি। যা প্রতি বছর ২০ শতাংশ হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে। রাজ্যের পরিবার কল্যান মন্ত্রকের ডিজি জানিয়েছেন সরকার চাইছে না এখনই বন্ধ্যাত্বকরণের মাধ্যমে জন্ম নিয়ন্ত্রণের পথে যেতে, সরকারের লক্ষ্য সচেতনতা বৃদ্ধি ও এই নীতির মাধ্যমে বিষয়টিকে নিয়ন্ত্রণ করা।

উল্লেখ্য, দুইয়ের বেশি সন্তান থাকলে ভোটে লড়তে না দেওয়ার এই নীতি বর্তমানে লাগু রয়েছে রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, অন্ধ্রপ্রদেশ, হরিয়ানা, হিমাচল প্রদেশের মতো রাজ্যগুলিতে।

Comments
Loading...