বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে বর্ধমানের প্রাক্তন সিপিএম নেতা আইনুল হক, যোগ দিলেন ডা: রেজাউল করিম সহ আরও ৩

ফের তৃণমূলে যোগদানের ঢল। বুধবার দলের মহাসচিব পতাকা তুলে দেন আইনুল হক সহ অন্যান্য তৃণমূলে যোগদানকারীদের হাতে। পূর্ব বর্ধমানে এক সময়ের দাপুটে সিপিএম নেতা আইনুল হক ২০১৯ সালের মার্চে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন। বুধবার তাঁর হাতে ঘাসফুল পতাকা তুলে দেন পার্থ চ্যাটার্জি। পাশাপাশি এদিনই আনুষ্ঠানিকভাবে তৃণমূলে যোগ দিলেন ডাক্তার কৌশিক চাকি, ডাক্তার রেজাউল করিম এবং সুন্দর পাসোয়ান।

বিজেপির রাজনীতির প্রতিরোধ করতে জোট বাঁধার ডাক দিয়েছিলেন মমতা ব্যানার্জি। ২১ জুলাইয়ের ভার্চুয়াল সভা থেকে আহ্বান জানিয়েছিলেন, যাঁরা তৃণমূলের পতাকা তুলে ধরে বিজেপির রাজনীতির মোকাবিলা করতে চান, তাঁদের দলে ফেরার। সেই আহ্বানের পর যেন তৃণমূলে যোগদানের হিড়িক পড়ে গিয়েছে। লোকসভা ভোটে রাজ্যের যে এলাকাগুলোতে তৃণমূলের ফল খারাপ হয়েছিল, সেখান থেকে অন্য দল ছেড়ে দলে দলে নেতা কর্মীরা আসছেন তৃণমূলে। উত্তরবঙ্গ থেকে দক্ষিণবঙ্গ, বিজেপি-সিপিএম-কংগ্রেস ছেড়ে তৃণমূলে যোগদান অব্যাহত।

বুধবার তৃণমূল ভবনে মহাসচিব পার্থ চ্যাটার্জির হাত থেকে দলীয় পতাকা তুলে নেন বর্ধমানের বিজেপি নেতা আইনুল হক। লোকসভা ভোটের আগে সিপিএম ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন তিনি। এদিন তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন ভারতীয় জনতা মজদুর ট্রেড ইউনিয়ন কাউন্সিলের জাতীয় সাধারণ সম্পাদক সুন্দর পাসোয়ানও। পেশায় গলসির একটি উচ্চ মাধ্যমিক স্কুলের হিন্দির শিক্ষক সুন্দর পাসোয়ান এলাকায় গরীব ও দুঃস্থ ছাত্রছাত্রীদের বিনামূল্যে পড়াশোনার ব্যবস্থা করেছেন। পিছিয়ে পড়া সম্প্রদায়ের ছাত্রছাত্রীদের মধ্যেও তাঁর উল্লেখযোগ্য কাজ আছে। মমতা ব্যানার্জির নেতৃত্বে ভাগাভাগির বিরোধী রাজনীতি করতেই তাঁর তৃণমূলে যোগদান বলে জানিয়েছেন তিনি। এছাড়াও ডাক্তার কৌশিক মাইতি ও ডাক্তার রেজাউল করিম তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন। এই দুজনকেই ওয়েস্ট বেঙ্গল ডক্টরস ফোরামের প্রাণপুরুষ হিসেবে অভিহিত করা হয়।

মমতা ব্যানার্জির হাত শক্ত করাই উদ্দেশ্য, বললেন তৃণমূলে নবাগতরা। আর মহাসচিব পার্থ চ্যাটার্জি দাবি করলেন, বিজেপির আগ্রাসনের বিরুদ্ধে এভাবেই বাংলায় জনমত তৈরি হচ্ছে। মমতা ব্যানার্জির ডাকে সাড়া দিয়ে ভবিষ্যতেও বিভিন্ন জগতের গণ্যমান্যরা এভাবেই তৃণমূলে যুক্ত হয়ে বাংলার চিরন্তন রাজনীতিকে এগিয়ে নিয়ে যাবেন।

Comments
Loading...