মালদা সীমান্তে ধৃত হান জানুই চিনা গুপ্তচর, চাঞ্চল্যকর তথ্য বিএসএফের

বৃহস্পতিবার মালদা সীমান্তে ধরা পড়েছে চিনা নাগরিক হান জানুই। সে আসলে চিনা গুপ্তচর। জিজ্ঞাসাবাদ করে এমনই চাঞ্চল্যকর তথ্য পেয়েছে বিএসএফ।

জানা গেছে, ২০১৯ সালের পর থেকে তিনবার ভারতে এসেছিল সে। গুরুগ্রামের স্টার স্প্রিং হোটেলে থাকত। এরপর সেই হোটেলের মালিকানা পেয়ে যায় সে। বৈধ ভুস ছাড়াই ২০১৯ সালে এই হোটেলের মালিকানা আদায় করে নেয় সে।

বিএসএফ সূত্রের খবর, ২ জুন বিজনেস ভিসা নিয়ে বাংলাদেশের চাপাইনবাবগঞ্জে আসে সে। সেখানে এক চিনা বন্ধুর সঙ্গে কিছুদিন ছিল। এরপর ৮ তারিখে চাপাইনবাবগঞ্জ থেকে ভারতীয় সীমান্তের দিকে সোনা মসজিদের কাছে চলে আসে। সেখানে হোটেলে ২ দিন থাকার পর বৃহস্পতিবার মালদার কাঁটাতারহীন সীমান্ত পেরিয়ে ভারতে প্রবেশ করতে গিয়ে হাতেনাতে পাকড়াও করা হয় তাকে।

ধৃতের কাছ থেকে মিলেছে চিন, বাংলাদেশ ও ভারতের একাধিক সিম কার্ড, টাকা পাঠানোর মেশিন, মার্কিন ডলার, বাংলাদেশি মুদ্রা ও ভারতের টাকা। বাজেয়াপ্ত হয়েছে তার মোবাইল, ল্যাপটপ ও পাসপোর্ট।

হান জানুইয়ে এক সঙ্গী সান জিইয়াংকে কয়েকদিন আগেই লখনউ থেকে গ্রেফতার করেছে এটিএস। তাঁর কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছিল ১০ থেকে ১৫টি সিমকার্ড।

বিএসএফ সূত্রের খবর, ৩৬ বছরের হান চিনের হুবাই প্রদেশের বাসিন্দা। ইতিমধ্যেই তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে বিএসএফ আধিকারিকরা নিশ্চিত সে চীনা গুপ্তচর। শুক্রবার ধৃতকে জিজ্ঞাসাবাদ করবে এনআইএ। ২ দিন আগে কলকাতায় এএটিএফের এনকাউন্টারে নিহত জয়পাল ও জসসির সঙ্গে হানের কোনও যোগাযোগ আছে কিনা, তা যাচাই করবে এনআইএ।

Comments
Loading...