জুড়ে গেল কালীঘাট-দক্ষিণেশ্বর, নোয়াপাড়া-দক্ষিণেশ্বর মেট্রোর ভার্চুয়াল উদ্বোধন মোদীর

নোয়াপাড়া-দক্ষিণেশ্বর মেট্রোর উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এছাড়াও ডানলপের সভা থেকে আরও ৪ টি রেল সম্প্রসারণ প্রকল্পের উদ্বোধন করেন মোদী। মঙ্গলবার থেকেই চালু হচ্ছে নোয়াপাড়া-দক্ষিণেশ্বর মেট্রো।

নোয়াপাড়া-দক্ষিণেশ্বর মেট্রো লাইন চালু হলে কালীঘাট এবং দক্ষিণেশ্বর দুই তীর্থস্থান জুড়ে যাবে। এর ফলে সুবিধা হবে পর্যটক থেকে শুরু করে নিত্যযাত্রীদের। বরাহনগর ও বি টি রোড সংলগ্ন বিস্তীর্ণ এলাকার মানুষের যাতায়াতের সুবিধা হবে।

মেট্রো সূত্রের খবর, কিলোমিটার বাড়লেও মেট্রো ভাড়া সর্বোচ্চ থাকছে ২৫ টাকাই। দক্ষিণেশ্বর থেকে বরাহনগর যেতে লাগবে ৫ টাকা। আর নোয়াপাড়া যেতে লাগবে ১০ টাকা। দমদম এবং বেলগাছিয়ায় যেতে লাগবে ১৫ টাকা। এরপর যতীন দাস পার্ক পর্যন্ত সব স্টেশনের জন্য ২০ টাকা করে ভাড়া লাগবে। সর্বোচ্চ ভাড়া দক্ষিণেশ্বর থেকে কবি সুভাষ পর্যন্ত ২৫ টাকা।

কলকাতা মেট্রো সূত্রে জানা গিয়েছে, কাজের দিন দক্ষিণেশ্বর থেকে নিউ গড়িয়া পর্যন্ত ১৫৮ টি ট্রেন চলবে। ছুটির দিনে চলবে ১৫৬ টি ট্রেন। মেট্রো সূত্রের আরও খবর, শেষ মেট্রো চলবে রাত ৯.৩০ পর্যন্ত। অফিস টাইমে ৭ মিনিট অন্তর ট্রেন ছাড়বে।

উদ্বোধনের আগেই মেট্রো স্টেশনের ফলকে বাংলা ভাষা না থাকায় বিতর্ক সৃষ্টি হয়েছিল। বরাহনগর এবং দক্ষিণেশ্বর স্টেশনের নামের ফলকে বাংলা ভাষা না থাকার অভিযোগ উঠেছিল। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই ফলক বদল করেন মেট্রো কর্তৃপক্ষ। নতুন ফলকে বাংলা, হিন্দি এবং ইংরেজিতে স্টেশনের নাম লেখা হয়।

দক্ষিণেশ্বর মেট্রো নিয়ে বাংলায় টুইট করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি জানান, বরানগর এবং দক্ষিণেশ্বর স্টেশন দুটিতে আধুনিকতার ছোঁয়া রয়েছে। সবরকমের সুবিধাও রয়েছে।

নোয়াপাড়া থেকে দক্ষিণেশ্বর পর্যন্ত ৪.১ কিলোমিটার দীর্ঘ এই লাইন সম্প্রসারনের জন্য প্রায় সাড়ে ৪০০ কোটি টাকা ব্যয় করা হয়েছে। বরাহনগরের কাছে জমিজটের কারণে দীর্ঘদিন এই প্রকল্প আটকে ছিল। স্টেশন চত্ত্বরে থাকা দোকানগুলির ক্ষেত্রে কিছু নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। রাত ৮ টার মধ্যে সব দোকান বন্ধ করার নির্দেশ দেওয়া হয়।

দক্ষিণেশ্বর স্টেশন সংলগ্ন এলাকা খুব সংকীর্ন। সেই কারণেই প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে উদ্বোধন অনুষ্ঠান ভার্চুয়ালি করেন প্রধানমন্ত্রী।

Comments
Loading...