ভার্চুয়াল সমাবেশে যখন মমতা ব্যানার্জি আসন্ন বিধানসভা ভোটে বিজেপির জামানত বাজেয়াপ্ত করার হুঙ্কার দিচ্ছেন, ঠিক তখনই বিজেপির পতাকা হাতে তুলে নিয়েছিলেন ভারতীয় ফুটবলের মিডফিল্ড জেনারেল মেহতাব হোসেন। ২১ জুলাই বিজেপির রাজ্য সভাপতির হাত থেকে গেরুয়া পতাকা হাতে নেওয়ার সেই ছবি মুহূর্তে ছড়িয়ে পড়ে সোশ্যাল মিডিয়ায়। মেহতাব বলেছিলেন, সাধারণ মানুষের জন্য কিছু করার তাগিদ থেকেই বিজেপিতে যোগদান। জানিয়েছিলেন, বিজেপিকে সাম্প্রদায়িক দল বলে মানেন না তিনি। কিন্তু তার ২৪ ঘণ্টা কাটতে না কাটতেই ছন্দপতন। বিজেপি ছাড়লেন মেহতাব। প্রবল বিড়ম্বনায় বঙ্গ বিজেপি।

২১ জুলাই মুরলিধর সেন লেনের বিজেপির দলীয় দফতরে মেহতাবকে নিয়ে আসেন আর এক প্রাক্তন ফুটবলার ষষ্ঠী দুলে। হাতে দলীয় পতাকা তুলে দিয়ে চওড়া হাসিতে মেহতাবকে স্বাগত জানান দিলীপ ঘোষ। কিন্তু তারপর কাটল না একদিনও। এর মধ্যেই বিজেপি ছেড়েও দিলেন মেহতাব।

বুধবার দুপুরে নিজের ফেসবুক পেজে একটি পোস্ট করেন মেহতাব হোসেন। সেখানে তিনি লেখেন, যাদের পাশে দাঁড়ানোর জন্য আমার রাজনীতিতে আসা, তারাই আমাকে অনুরোধ করে, আমি যেন রাজনীতিতে না জড়াই। মানে, কোথাও গিয়ে তাদের ভাবাবেগ যেন আমাকে রাজনীতিবিদ হিসেবে দেখতে চাইছে না। তারপর ময়দানের দুই প্রধান কাঁপানো মিডফিল্ডার লিখেছেন, তাই অনেক ভেবে সিদ্ধান্ত নিলাম, রাজনীতি থেকে নিজেকে সরিয়ে নেব। মাঝে মধ্যে, বৃহত্তর স্বার্থের জন্য ক্ষুদ্র স্বার্থকে ত্যাগ করতে হয়। আমিও তাই করতে চাই। নিজের রাজনৈতিক পরিচয়ের থেকে আমার কাছে ওই মানুষগুলোর ভালবাসা অনেক বেশি দামী, অনেক বেশি প্রিয়। ওই উন্মুক্ত সবুজ মাঠই আমার জায়গা, ওই গ্যালারির গগনভেদী “মেহতাব-মেহতাব” চিৎকারই আমার পছন্দের শ্লোগান। সেই শ্লোগানে অন্যকিছু মিশুক তা আমি চাই না। মেহতাব ফেসবুক পোস্টে স্বীকার করেছেন, পরিবারের কেউই তাঁর এই সিদ্ধান্ত সমর্থন করেননি। তাই রাজনীতিতে যোগ দেওয়ার ২৪ ঘণ্টা কাটার আগেই ছেড়েও দিলেন।

কী এমন হল যে একদিনের মধ্যেই সিদ্ধান্ত বদলে ফেললেন ভারতীয় ফুটবলের মিডফিল্ড জেনারেল? সূত্রের খবর, কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মী মেহতাব নিজের অফিস সংক্রান্ত ব্যাপারে বিজেপি নেতৃত্বের কাছে দরবার করেছিলেন। সেই সূত্রেই বেশ কয়েকবার প্রাক্তন ফুটবলার ষষ্ঠী দুলের সঙ্গে তিনি বিজেপির রাজ্য দফতরে যান। মঙ্গলবারও তেমনই গিয়েছিলেন। তারপরই যোগদানের ঘটনা ঘটে।

বারুইপুরের মেহতাব হোসেন ভারতীয় ফুটবলের অন্যতম নাম। স্বভাবতই তাঁর বিজেপিতে যোগদানে হইচই পড়ে যায়। কিন্তু বিজেপিতে যোগ দেওয়ার একদিনের মধ্যে রাজনীতি ত্যাগ, আরও বড় হইচই ফেলে দিয়েছে। মেহতাবের ঘনিষ্ঠ মহল বলছে, আচমকা বিজেপিতে যোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে পরিবারের মধ্যেও অশান্তি হয়। তারপরই পাকাপাকিভাবে বিজেপি ত্যাগের সিদ্ধান্ত নেন মেহতাব হোসেন।

২১ জুলাই তৃণমূলের শহিদ সমাবেশ চলাকালীন মেহতাবের যোগদান নিয়ে উচ্ছ্বসিত ছিলেন রাজ্য বিজেপির নেতারা। রাত পোহাতেই এবার সেই ঘটনা নিয়েই চরম বিড়ম্বনায় দিলীপ ঘোষরা।

ধারাবাহিকভাবে পাশে থাকার জন্য The Bengal Story র পাঠকদের ধন্যবাদ। আমরা যে ধরনের খবর করি, তা আরও ভালোভাবে করতে আপনাদের সাহায্য আমাদের উৎসাহিত করবে।

Login Support us