কোকেন, চরস নিতেন ইমরান! অভিযোগ মিথ্যে হলে মামলা করতে পারেন, পাক প্রধান মন্ত্রীর বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ প্রাক্তন সতীর্থর

ক্রিকেট বিশ্বকাপজয়ী প্রাক্তন অধিনায়ক ও পাকিস্তানের প্রধান মন্ত্রী ইমরান খানের বিরুদ্ধে মারাত্মক অভিযোগ তুললেন প্রাক্তন পাক পেসার তথা তাঁর প্রাক্তন সতীর্থ সরফরাজ নাওয়াজ। তাঁর দাবি, ইমরান খান ছিলেন ‘ড্রাগ অ্যাডিক্ট’। ১৯৮৭ সালে তিনি ইমরান খানকে কোকেন নিতেও দেখেছেন।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া এক ভিডিওয় সরফরাজ নাওয়াজকে বলতে শোনা যায়, শুধু তিনিই নন, ইমরান খানের ড্রাগ নেওয়ার সাক্ষী পাক ক্রিকেট দলের বহু প্রাক্তন সদস্য। এই অভিযোগ মিথ্যে হলে অধুনা পাক প্রধান মন্ত্রী ইমরান খান তাঁকে কোর্টে তুলতে পারেনও বলে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়েছেন সরফরাজ।

সাতের দশকের শেষ থেকে ‘৮০, প্রায় এক দশক ধরে পাক ক্রিকেটের পেস বোলিংয়ের দায়িত্ব ছিল সরফরাজ ও ইমরান খানের কাঁধে। ১৯৮৭ সালের একটি ঘটনা তুলে ধরে সরফরাজ জানান, সেবার ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টেস্ট ম্যাচে ভালো বল করতে পারছিলেন না ইমরান। তখন ঘরে এসে ড্রাগ নিতেন ইমরান।

এছাড়াও লন্ডন ও পাকিস্তানে থাকার সময় গাঁজাও খেতেন ইমরান, অভিযোগ তাঁর প্রাক্তন সতীর্থর। তিনি বলেন, ১৯৮৭ সালে ইংল্যান্ডের সঙ্গে খেলার সময়ে আমার বাড়িতে খেতে এসেছিলেন ইমরান। তাঁর সঙ্গে ছিলেন মহসিন খান, আব্দুল কাদির, সেলিম মালিকরা। সেসময় ইমরানকে চরস খেতে দেখেছি। লন্ডনেও এমন অনেকে রয়েছেন এই দৃশ্যের সাক্ষী, ইমরান খানের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ সরফরাজ নাওয়াজের।

 

Comments
Loading...