জেলির শিরদাঁড়া সম্পন্ন ভগবানের জন্য লজ্জিত! নাম না করে সচিনকে কটাক্ষ মহুয়ার

এবার নাম না করে সেলিব্রিটিদের বিঁধলেন তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র

কৃষক আন্দোলনের ২ মাস পেরিয়ে গিয়েছে। দিল্লির সীমানা ছেড়ে নড়েননি কৃষকরা। কিন্তু শেষ ক’দিনে তা যেন অন্য মাত্রা পেয়েছে। সৌজন্যে পপ তারকা রিহানা এবং পরিবেশ আন্দোলনের কর্মী গ্রেটা থুনবার্গ।

তাঁদের ট্যুইট আচমকাই দেশের সেলিব্রিটি মহলের ঘুম ভাঙ্গিয়ে দিয়েছে বলে দাবি করছেন আন্দোলনকারীরা। এবার নাম না করে সেই সেলিব্রিটিদের বিঁধলেন তৃণমূল সাংসদ মহুয়া মৈত্র।

ভারতের অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে কেন বিদেশিরা মন্তব্য করবেন, তা নিয়ে তোলপাড় ভারতের সেলিব্রিটি মহল। নাক না গলানোর দাবি জানিয়ে ট্যুইট করেছেন লতা মঙ্গেশকর থেকে শুরু করে তাবড় ব্যক্তিত্বরা। সেই তালিকায় শুরুতে আছেন কিংবদন্তি ক্রিকেটার সচিন। ক্রিকেটের ভগবান নামে পরিচিত সচিনের ট্যুইটের পরই লাইন দিয়ে একে একে ট্যুইট এসেছে বিরাট কোহলি, অনিল কুম্বলের হ্যান্ডল থেকে। সবারই বয়ান মোটের উপর এক।
এবার নাম না করে সেই সচিনকেই কটাক্ষ কৃষ্ণনগরের সাংসদের।

কী হয়েছিল?
রিহানা-গ্রেটাদের ট্যুইটে জবাব দেওয়ার পর থেকেই দেশের একটি অংশ সরাসরি সচিনের বিরোধিতায় নামে। কয়েক বছর আগে সচিনকে চেনেন না বলায় প্রবল ট্রোলিংয়ের মুখে পড়েছিলেন টেনিস তারকা মারিয়া শারাপোভা। সেই ইস্যু খুঁচিয়ে তুলে শারাপোভার কাছে লাইন দিয়ে ক্ষমা চাইছেন নেটিজেনরা। তাঁদের দাবি, যে সচিনকে ঈশ্বর তুল্য মনে করতেন, আজ প্রমাণ হয়ে গেল তিনি আমাদের মতোই নরম শিরদাঁড়ার অধিকারী। তাই আপনাকে সেই সময় ট্রোল করার জন্য ক্ষমা চাইছি। সাংসদ থাকাকালীন কেরলের একটি স্কুলের জন্য অনুদান দিয়েছিলেন সচিন। জানা গিয়েছে, শারাপোভাকে ট্রোলিংয়ে সবচেয়ে এগিয়ে ছিলেন সেই এলাকার মালয়ালি বাসিন্দারা। এবার ক্ষমা চাওয়ার দৌড়েও এগিয়ে তাঁরাই।

এই প্রসঙ্গ তুলে ধরে মহুয়া বিঁধেছেন ১০০ সেঞ্চুরির মালিককে। ট্যুইটে লিখেছেন, আমি মালয়ালি সহ নাগরিকদের সঙ্গে একমত। সত্যিকারের ভগবান জানেন কোনটা ঠিক আর কোনটা ভুল। অভ্যন্তরীণ চাপের মুখে ভগবান ভুলকে ঠিক বলে দাবি করেন না।
এরপর মহুয়া লিখেছেন, কাঠের ব্যাট হাতে মাটির পা ওয়ালা এবং জেলির শিরদাঁড়া সম্পন্ন ভগবানের জন্য আজ সত্যি লজ্জা লাগছে।

কৃষক আন্দোলন নিয়ে আচমকাই যেন তোলপাড় পড়ে গিয়েছে দেশের সেলিব্রিটি মহলে। এই প্রেক্ষিতেই সমালোচকরা প্রশ্ন করছেন, সচিন, কোহলি যদি আগে কৃষকদের দুর্দশা নিয়ে ট্যুইট করতেন তাহলে হয়ত রিহানা, গ্রেটাদের অন্য দেশের ব্যাপারে নাক গলাতে হতো না। এবার মহুয়া মৈত্রের তীক্ষ্ণ কটাক্ষে বিদ্ধ হলেন ক্রিকেটের ঈশ্বর!

Comments
Loading...