সুপ্রিম কোর্টে স্বস্তি মিলল ভোটে কারচুপির দায়ে নির্বাচন বাতিল হওয়া গুজরাতের বিজেপি মন্ত্রী ভুপেন্দ্র সিংহের

২০১৭ সালের বিধানসভা ভোটে কারচুপি ও অনিয়ম করে জেতার অভিযোগে গুজরাতের প্রবীণ বিজেপি নেতা ভুপেন্দ্র সিংহ ছুদাসামার নির্বাচন ও বিধায়ক পদ বাতিল করেছিল গুজরাত হাইকোর্ট। তিন দিনের মধ্যে শুক্রবার গুজরাতের এই মন্ত্রী স্বস্তি পেলেন সুপ্রিম কোর্টে।
গুজরাত হাইকোর্টের রায়ে নির্বাচন বাতিলের পরই সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হন বিজয় রূপানি সরকারের শিক্ষা, আইন সহ একাধিক দফতরের মন্ত্রী ভুপেন্দ্র সিংহ। শুক্রবার সুপ্রিম কোর্টের বিচারপতি এল নাগেশ্বর রাও, বিচারপতি সঞ্জয় কিষাণ কউল ও বিচারপতি বি আর গাভোই- এর বেঞ্চ হাইকোর্টের নির্দেশে স্থগিতাদেশ দেয়। ভুপেন্দ্র সিংহের আবেদনের প্রেক্ষিতে কংগ্রেদ নেতা অশ্বিন রাঠোর, যিনি বিজেপি মন্ত্রীর বিরুদ্ধে নির্বাচনী কারচুপির অভিযোগ তুলেছিলেন, তাঁর প্রতিক্রিয়া চেয়ে নোটিস জারি করেছে সুপ্রিম কোর্ট। নির্বাচন কমিশনেরও এই বিষয়ে প্রতিক্রিয়া চেয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। বিজেপি নেতা ভুপেন্দ্র সিংহের হয়ে শীর্ষ আদালতে এই মামলা লড়ছেন আইনজীবী হরিশ সালভে এবং মামলাকারী কংগ্রেস নেতার হয়ে কপিল সিব্বল। তিন সপ্তাহ পর ফের এই মামলার শুনানি হবে জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। ততদিন স্থগিত থাকছে গুজরাত হাইকোর্টের নির্দেশ।
গুজরাতে বিজেপির অন্যতম প্রধান নেতা ও মন্ত্রী ভুপেন্দ্র সিংহ ২০১৭ সালে ঢোলকা বিধানসভা কেন্দ্র থেকে কংগ্রেস নেতা অশ্বিন রাঠোরকে হারিয়ে  বিধায়ক হন। কিন্তু সেই ভোটে ভুপেন্দ্রর বিরুদ্ধে নির্বাচনী কারচুপির অভিযোগ আনেন তাঁর বিপক্ষ তথা কংগ্রেস নেতা অশ্বিন রাঠোর। ২০১৭ সালের বিধানসভা নির্বাচনে মাত্র ৩২৭ টি ভোটে জেতেন ভুপেন্দ্র সিংহ।

হাইকোর্টের রায়ে ভুপেন্দ্র সিংহের মতো একজন মন্ত্রীর নির্বাচন বাতিল হয়ে যাওয়ায় ব্যাপক চাপে পড়ে গুজরাতের বিজেপি সরকার। কোনও শাসক দলের মন্ত্রীর নির্বাচন বাতিল হয়ে যাওয়া ভারতে প্রায় বিরল। শুক্রবার শীর্ষ আদালতের নির্দেশে সাময়িক স্বস্তিও মিলল তাঁর। এদিন সুপ্রিম কোর্টের এই ঘোষণার পর বিজেপি নেতা জানান, দুই -তিন দিনের মধ্যে স্পেশাল লিভ পিটিশন নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন করবেন তাঁরা।

Comments
Loading...