নন্দীগ্রামে বিজেপির সভায় বিশৃঙ্খলা, তাল কাটল বারবার, তৃণমূলের বিরুদ্ধে ঢিল ছোড়ার অভিযোগ শুভেন্দুর

ফের তৃণমূলের ১৮ তারিখের সভার পাল্টা সভার ডাক দিলেন শুভেন্দু, এবার খেজুরিতে

৭ জানুয়ারি তৃণমূলের নন্দীগ্রাম দিবসের পাল্টা ৮ জানুয়ারি, শুক্রবার শুভেন্দু অধিকারীর নেতৃত্বে সমাবেশের ডাক দিয়েছিল বিজেপি। শুভেন্দুর দাবি ছিল, লক্ষাধিক মানুষের জমায়েতে ‘ঐতিহাসিক সভা’ হবে অনেক পালাবদলের সাক্ষী নন্দীগ্রামে। তাঁর দাবি মতো শুক্রবার মানুষের ঢল নামে সভায়। কিন্তু সেই মানুষের ঢলেই বিশৃঙ্খলায় বেশ কয়েকবার তাল কাটল সভার। বিশৃঙ্খলা থামাতে বারবার হাত নেড়ে ইশারা করতে দেখা যায় শুভেন্দু অধিকারীকে। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আগেভাগেই সভা শেষ করে দিতে হয় বিজেপিকে। কোনও রকম ভাবে সারা হয় নতুন নেতা কর্মীদের বিজেপিতে যোগদান পর্ব।
এদিনের সভার প্রথম থেকেই বিশৃঙ্খলা দেখা যায়। কৈলাস বিজয়বর্গীয় ভাষণ করার সময় সভাস্থলে গণ্ডগোল হয় প্রথম। তখন চেয়ার থেকে উঠে সামাল দিতে হয় শুভেন্দু অধিকারীকে। কিন্তু তারপর ব্যাহত রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষের বক্তৃতাও। যার প্রেক্ষিতে বিরক্ত দিলীপ ঘোষ মন্তব্য করেন, বিজেপি শৃঙ্খলাপরায়ণ দল। যাঁরা নতুন এসেছেন তাঁরা শৃঙ্খলাপরায়ণ হন। বিজেপির রাজ্য সভাপতির অভিযোগ, এই সভা ভণ্ডুল করার চেষ্টা হয়েছিল, সেই অপচেষ্টা রুখে দিয়েছেন মানুষ। তারপরেও ফের হইচই থামাতে গিয়ে দিলীপকে বলতে হয়, ‘আপনারা শুনুন না হলে আমি বলা বন্ধ করে দিচ্ছি।’
নন্দীগ্রাম থেকে তৃণমূলের উদ্দেশে শুভেন্দু কী বলেন সেদিকে নজর ছিল রাজনৈতিক মহলের। কিন্তু সভায় গণ্ডগোলের জেরে প্রায় কোনও কিছুই বললেন না তিনি। তাঁর অভিযোগ, দু’ একজনকে এই সভায় পাঠিয়ে বিশৃঙ্খলা ছড়াতে চেয়েছে তৃণমূল।
শুভেন্দু বক্তৃতা করতে গিয়ে বলেন, ‘এই সভা আটকানোর জন্য রাস্তা আটকানো হয়েছে।’ এরপর সভায় উপস্থিত জনতার উদ্দেশে শুভেন্দুর মন্তব্য, ‘আমি শুধু বলব, সূর্য ডোবার আগে আপনারা বাড়ি যান। এই সভা চলতে চলতে ঢিলও মারা হয়েছিল। অনেকে আশঙ্কা, আতঙ্কে চলে যান।’ তৃণমূলত্যাগী নব্য বিজেপি নেতার অভিযোগ, সিপিএম আমলেও এরকম হয়নি। এই দৃশ্য আজ দেখলাম!
শুভেন্দুর অভিযোগ মতো নন্দীগ্রামের সভা তৃণমূলের ষড়যন্ত্রে পণ্ড হলেও ফের নন্দীগ্রামের পাশের থানা খেজুরিতে আগামী ১৮ জানুয়ারি সভা করবেন তিনি। নন্দীগ্রামের পদত্যাগী বিধায়কের কথায়, তৃণমূলের ৭ তারিখের সভার পাল্টা দিতে এই সভার ডাক দিয়েছিলাম। কিন্তু সেই সভা করেনি তৃণমূল। ১৮ তারিখ সভা করার ডাক দিয়েছে তারা। তাই ওই সভার পরদিন ১৯ তারিখ খেজুরির বিদ্যাপীঠ ফুটবল ময়দানে পাল্টা সভা করে তৃণমূলের ভাষণের জবাব দেব।

Comments
Loading...