যুব কর্মীদের কাজ বেঁধে দিলেন অভিষেক ব্যানার্জি, ৫ দিনের উত্তরবঙ্গ সফরে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব নিয়ে কড়া অবস্থান

মানুষের পাশে থাকতেই হবে, নির্দেশ অভিষেকের

দার্জিলিং জেলা নিয়ে তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্বের মাথা ব্যথা আজকের নয়। নিজেদের মধ্যে গোলমাল এমন জায়গায় পৌঁছেছে যে জেলা কমিটি পর্যন্ত তৈরি করেননি দলনেত্রী। এই পরিস্থিতিতে উত্তরবঙ্গ সফরে গিয়ে যুব কর্মীদের কোমর বেঁধে নামার নির্দেশ দিলেন অভিষেক ব্যানার্জি। 

৫ দিনের উত্তরবঙ্গ সফরে এবার উত্তরকন্যার অতিথি নিবাসে ছিলেন অভিষেক। সেখানেই শিলিগুড়ির তৃণমূল নেতৃত্বকে নিয়ে বৈঠক করেন তিনি। সূত্রের খবর, গৌতম দেব, রঞ্জন সরকার, নান্টু পালদের পাশে বসিয়ে অভিষেক ব্যানার্জি সাফ জানিয়ে দেন, নিজেদের মধ্যে গোলমাল দ্রুত মেটাতে হবে। দলকে এজন্য ক্ষতিগ্রস্ত করা যাবে না। 

পাশাপাশি শিলিগুড়ি মহকুমার যুব তৃণমূল কর্মীদের জন্য আলাদা কাজ বেঁধে দিয়েছেন অভিষেক। পদ নিয়ে বাড়িতে বসে থাকা যাবে না। যেতে হবে মানুষের দরজায় দরজায়। জানতে হবে সাধারণ মানুষের সুবিধা অসুবিধা। 

দুয়ারে সরকার থেকে শুরু করে রুপশ্রী, যুবশ্রী প্রভৃতি প্রকল্পের খুঁটিনাটি মানুষকে বোঝাতে হবে। স্বাস্থ্য সাথী নিয়ে কারও কোন জিজ্ঞাসা থাকলে সদুত্তর দেবেন যুব কর্মীরাই। কেউ যদি স্বাস্থ্য সাথী কার্ড থাকা সত্ত্বেও সুবিধা না পান, সেক্ষেত্রে যুব কর্মীদের এগিয়ে আসার নির্দেশ দিয়েছেন অভিষেক ব্যানার্জি। 

শিলিগুড়িতে রাজ্য সরকারের বেশ কিছু প্রকল্পের সুবিধা মিলছে না বলে অভিযোগ উঠেছে। সেই অভিযোগ পৌঁছেছে অভিষেকের কানেও। রেশনে আতপ চাল দেওয়া নিয়ে সাধারণ মানুষের অভিযোগ আছে। তাঁদের দাবি সেদ্ধ চাল দেওয়া হোক। অভিষেক ব্যানার্জি এই অভিযোগ শুনেই খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিককে ফোন করেন। জানান সমস্যার কথা। তারপরই খাদ্য দফতর বিজ্ঞপ্তি দিয়ে জানায় এখন থেকে সেদ্ধ চাল দেওয়া হবে। অভিযোগ জানানোর সঙ্গে সঙ্গে সমাধান পেয়ে খুশি মানুষ। যুব সভাপতির স্পষ্ট নির্দেশ, সরকারি প্রকল্পের সুবিধা পাওয়ার যোগ্য মানুষ যেন কোনও সমস্যায় না পড়েন তা নিশ্চিত করতে হবে যুব কর্মীদের। 

অভিষেক ব্যানার্জির নির্দেশ পাওয়ার পরই বাড়ি বাড়ি ঘুরতে শুরু করেছেন যুব কর্মীরা। ডায়মন্ড হারবারের সাংসদ বলে গিয়েছেন, ভোটের জন্য খাটা খাটনি পরেও করা যাবে কিন্তু মানুষের পাশে থাকাটাই এখন সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। সেই কাজে কোনরকম ফাঁকি বরদাস্ত করা হবে না।  

Comments
Loading...