জ্যোমাটোর পর স্যুইগি, ডেলিভারি বয় মুসলিম হওয়ায় হায়দরাবাদে খাবার বাতিল করলেন ক্রেতা

জ্যোমাটোর পর এবার স্যুইগি। ডেলিভারি বয় মুসলিম, তাই খাবারের অর্ডার বাতিল করলেন ফুড অ্যাপের এক ক্রেতা। গত বুধবার ঘটনাটি ঘটেছে হায়দরাবাদের আলিয়াবাদে।
আলিয়াবাদ এলাকার বাসিন্দা জনৈক অজয় কুমার ফুড অ্যাপ স্যুইগির মাধ্যমে ফালাকনুমার গ্রান্ড বাওয়ার্চি রেস্তরাঁ থেকে চিকেন-৬৫ নামে খাবারের পদ অর্ডার করেছিলেন। প্রেফারেন্সের জায়গায় তিনি লেখেন, খাবার যেন কম মশলাদার হয় এবং অনুগ্রহ করে হিন্দু ডেলিভারি বয় পাঠাবেন। সেই অনুযায়ী তিনি ‘রেটিং’ দেবেন।
কিন্তু স্যুইগির তরফে মুদাসির ওমর নামে যে ডেলিভারি বয়কে এই খাবার পৌঁছে দেওয়ার ভার দেওয়া হয় ঘটনাচক্রে তিনি একজন মুসলিম ধর্মাবলম্বী। খাবার নিয়ে তিনি অজয় কুমারের বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা হন। এলাকায় পৌঁছে অজয় কুমারকে ফোন করে তাঁর বাড়ির নির্দেশ চাইলে ডেলিভারি বয়কে পাল্টা নাম জিজ্ঞেস করা হয় বলে অভিযোগ। মুদাসির ওমরের কথায়, অজয় কুমারকে নিজের নাম বলার পরেই তিনি ফোনে প্রচণ্ড চিৎকার করতে থাকেন। তাঁকে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়, তিনি মুসলিম হওয়ার কারণে খাবারের অর্ডার বাতিল করে দিচ্ছেন তিনি। এখানেই থামেননি অজয় কুমার। এরপর, স্যুইগির কাস্টমার কেয়ার সেন্টারে ফোন করে টাকা ফেরত চান অজয় কুমার। ইংরেজি দৈনিক ‘হিন্দুস্তান টাইমস’ এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, খাবারের অর্ডার শেষ মুহূর্তে বাতিল করায় স্যুইগির তরফে ৯৫ টাকা ক্যানসেলেশন ফি চাইলে অজয় কুমার নাকি জানান, এই টাকা দিতে তিনি প্রস্তুত, কিন্তু মুসলিমের হাত থেকে খাবার কোনওমতেই নেবেন না। অন্যদিকে, মুসলিম ডেলিভারি বয়ের হাত থেকে খাবার না নিলেও মুসলিম রেস্তরাঁ থেকে খাবার অর্ডার করেছিলেন অজয় কুমার।
বিজ্ঞানে স্নাতকোত্তর শেষ করা ডেলিভারি বয় ওমর জানান, অজয় কুমারের বাড়ির কাছাকাছিই তাঁর বাড়ি। এ কারণেই তাঁকে ওই অর্ডার সাপ্লাইয়ের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল।
গত জুলাই মাসে মধ্য প্রদেশের জব্বলপুরের বাসিন্দা জনৈক অমিত শুক্লা জোম্যাটোতে খাবারের অর্ডার করে ঠিক একই কারণে খাবার নেননি। এরপর জোম্যাটোর বিরুদ্ধে সোশ্যাল মিডিয়াতে ক্ষোভ উগরে দিয়েছিলেন ওই ব্যক্তি। যদিও তাঁর এই আচরণ একেবারেই সমর্থন করেনি জোম্যাটো সংস্থা। সংস্থার তরফে ট্যুইটারে লেখা হয়, ‘খাবারের কোনও ধর্ম হয় না। খাবার নিজেই একটা ধর্ম।’ যদিও বুধবারের ঘটনায় স্যুইগির তরফে কোনও বিশেষ পদক্ষেপের কথা জানা যায়নি।

Comments
Loading...