যতই বিরোধিতা হোক, সিএএ নিয়ে এক ইঞ্চিও পিছু হঠবে না কেন্দ্র, যোধপুর থেকে মমতাকে নিশানা অমিত শাহের

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন বা সিএএ-এর বিরুদ্ধে দেশজুড়ে প্রতিবাদের মধ্যে দাঁড়িয়েও বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী এই আইনের পক্ষে সওয়াল করেছিলেন। শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী দেখানো পথে হেঁটেই তাঁর প্রধান সেনাপতি কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ (Amit Shah On CAA) জানিয়ে দিলেন, দেশজুড়ে যতই প্রতিবাদ হোক, সিএএ নিয়ে এক ইঞ্চিও পিছু হঠবে না কেন্দ্রীয় সরকার।
শুক্রবার রাজস্থানের যোধপুরে এক জনসভায় অমিত শাহ বলেন, সমস্ত বিরোধী রাজনৈতিক দল এর বিরোধিতা করলেও বিজেপি নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় সরকার এ বিষয়ে পিছু হঠবে না। তাঁর অভিযোগ, এই আইন নিয়ে ভুল তথ্য ছড়াচ্ছে কংগ্রেস এবং তার সহযোগী বিরোধী দলগুলি। কিন্তু ভুল তথ্য ছড়ালেও তা বাতিল করা হবে না। পাশাপাশি, যোধপুরের সভা থেকে মমতা ব্যানার্জিকেও নিশানা করেন অমিত শাহ।
শুক্রবারের জনসভা থেকে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীকেও তীব্র কটাক্ষ করেছেন অমিত শাহ। রাহুলের উদ্দেশ্যে তিনি বলেছেন, রাহুল যদি নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনটি পড়ে থাকেন তাহলে তিনি যে কোনও সময় আলোচনার জন্য আসতে পারেন, কিন্তু যদি তিনি এখনও এই আইনটি পড়ে না উঠতে পারেন তাহলে সেটি ইতালিয় ভাষায় অনুবাদ করার ব্যবস্থা তিনি করে দেবেন এবং তা রাহুলকে পাঠিয়ে দেবেন।
পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও এদিন আক্রমণ করেছেন অমিত শাহ (Amit Shah On CAA)। বলেছেন, পশ্চিমবঙ্গের হিন্দু শরণার্থী, দলিত এবং উদ্বাস্তুদের যদি নাগরিকত্ব দেওয়া হয় তাহলে মমতার অসুবিধা কোথায়? তিনি আরও বলেন, উদ্বাস্তুদের নিজেদের নাগরিকত্ব প্রমাণ জোগাড় করতে লম্বা লাইনে দাঁড়াতে হবে বলেও তৃণমূল সুপ্রিমো যে কথা বলেছেন তাও ভুল। মুসলমানদের এই আইন নিয়ে ভুল বোঝানো হচ্ছে বলেও অভিযোগ করেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।
যদিও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কথাকে গুরুত্ব দিতে নারাজ তৃণমূল। তৃণমূলের বক্তব্য, বাংলায় কিছুতেই নাগরিকত্ব আইন চালু করতে দেওয়া হবে না।

Comments
Loading...