বেলেঘাটা আইডি পরিকাঠামো-স্বাস্থ্য পরিষেবা দারুণ, হাসপাতাল পরিদর্শন করে রিপোর্ট দিল কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক দল

সপ্তাহ দুয়েক আগেই বাংলায় করোনা সংক্রমিত ও মৃতের পরিসংখ্যান নিয়ে তীব্র টানাপোড়েন চলছিল রাজ্য ও কেন্দ্রের। আর তাতে ঘৃতাহুতি করে কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক দলের রিপোর্ট। কিন্তু এবার কেন্দ্রীয় দলই রাজ্যের অন্যতম প্রধান কোভিড হাসপাতাল বেলেঘাটা আইডি-র পিঠ চাপড়ে দিল। নোটে লিখল নানা প্রশংসাসূচক শব্দ।
করোনা সংক্রমিত ও মৃতের তথ্য নিয়ে বিভ্রান্তির মধ্যে কয়েকদিন আগেই রাজ্যের স্বাস্থ্য সচিব বিবেক কুমারকে বদলি করা হয়েছে। আর এর মধ্যে কেন্দ্রীয় দলের কাছে রাজ্যের অন্যতম কোভিড হাসপাতালের বাহবা পাওয়া বেশ তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করা হচ্ছে।
প্রথম দফায় বাংলার করোনা নিয়ন্ত্রণের হাল দেখতে রাজ্যে আসা অপূর্ব চন্দ্রের নেতৃত্বাধীন কেন্দ্রীয় দল বেলেঘাটা আইডির দোরগোড়ায় পৌঁছলেও ভিতরে যায়নি। বরং রাজ্য অসহযোগিতা করছে এই অভিযোগে একাধিকবার নবান্নে চিঠি দেয় ওই কেন্দ্রীয় দল। তবে এই দফায় কেন্দ্রীয় দলের যে দু’জন সদস্যকে বাংলার ‘করোনা-পারফরমেন্স’ মূল্যায়নের ভার দেওয়া হয়, সেই চিকিৎসক অপরাজিতা দাশগুপ্ত ও লীনা বন্দ্যোপাধ্যায় বেলেঘাটা আইডি হাসপাতালের পরিকাঠামো দেখে সাধুবাদ জানালেন। বুধবার হাসপাতাল পরিদর্শন করে আইডি-কর্তৃপক্ষকে একটি নোট দেন দুই চিকিৎসক। সেই নোটে লেখা হয়েছে, বেলেঘাটা আইডি এক কথায় ‘দারুণ’। কর্তৃপক্ষ চাওয়া মাত্রই সব তথ্য দেয়। সব তথ্যই আইডি-কর্তৃপক্ষের নখদর্পণে ছিল। রোগীদের যত্ন নেওয়া, খাবার দেওয়া থেকে তাঁদের থাকার ব্যবস্থাপনা এবং পরিকাঠামো দেখে তাঁরা ‘অভিভূত’ বলে লিখেছেন দুই কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি। এইভাবেই বেলেঘাটা আইডি হাসপাতাল যেন তার পরিষেবা চালিয়ে যায়, শুভেচ্ছা জানিয়ে নোট শেষ করেন চিকিৎসক অপরাজিতা দাশগুপ্ত ও লীনা বন্দ্যোপাধ্যায়।

পড়ুন কী আছে সেই নোটে Beleghata ID praised by Central Team

এই প্রেক্ষিতে অনেকেই এমআর বাঙুর হাসপাতালের পরিষেবা নিয়ে প্রথম কেন্দ্রীয় দলের চিঠির ব্যাপার মনে করাচ্ছেন। যদিও বাঙুরের পরিষেবার মানও উন্নত হয়েছে বলে অভিমত দ্বিতীয় কেন্দ্রীয় দলের।

Comments
Loading...