বাস ভাড়া বাড়ানোর প্রস্তাব, ন্যূনতম ভাড়া ৩০ টাকা করার দাবি মালিক সংগঠনগুলোর, ট্যাক্সি ভাড়া ৩০% বাড়ানোর দাবি

কেন্দ্রের চতুর্থ দফার লকডাউনের প্রস্তুতির মধ্যেই বাংলার জেলায় জেলায় বাস পরিষেবা চালুর উদ্যোগ শুরু হয়েছে। কিন্তু সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং বিধি মেনে সর্বাধিক ২০ জন যাত্রী নিয়ে বাস চালাতে হবে। আর এতেই লোকসানের আশঙ্কায় বাস মালিক সংগঠনগুলো। ক্ষতি পুষিয়ে নিতে তাই বাস ভাড়া তিনগুণ বা তারও বেশি করার প্রস্তাব দিয়েছে মালিক পক্ষ। প্রথমে বাসের ন্যূনতম ভাড়া ৩০ টাকা এবং সর্বোচ্চ ৫০ টাকা করার প্রস্তাব দেওয়া হয় পরিবহণ দফতরের কাছে। স্বভাবতই চাপ বাড়তে চলেছে মধ্যবিত্তের পকেটে।

 

ভাড়া কত বাড়ানোর প্রস্তাব?

গত বুধবার রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে বৈঠকে বসেছিল বাস মালিকদের সংগঠনগুলি। কোন রুটে কত বাস চলবে, ভাড়া কী হতে পারে তা নিয়ে বৈঠকে আলোচনা হয়। সেখানে সবার মতামত নিয়ে একটা ভাড়া ঠিক করতে বলেছিল পরিবহণ দফতর। এর পরিপ্রেক্ষিতে বৃহস্পতিবার দুটি বাস মালিক সংগঠন ভাড়ার তালিকা তৈরি করেছে।

বাস মালিক সংগঠনের প্রস্তাবিত তালিকায় দেখা যাচ্ছে, কোনও কোনও ক্ষেত্রে আগের চেয়ে তিনগুণ বা তারও বেশি হারে ভাড়া বৃদ্ধির প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

বর্তমানে চার কিলোমিটার পর্যন্ত প্রথম স্টেজের ভাড়া সাত টাকা। এই ভাড়া ২০ টাকা করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। চার থেকে আট কিলোমিটার পর্যন্ত ২৫ টাকা, আট থেকে ১২ কিলোমিটার পর্যন্ত ৩০ টাকা, ১২ থেকে ১৬ কিলোমিটার পর্যন্ত ৩৫ টাকা এবং ১৬ থেকে ২০ কিলোমিটার পর্যন্ত ভাড়া ৪০ টাকা করার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।

বাস মালিকদের দ্বিতীয় যে সংগঠনটি ভাড়ার তালিকা তৈরি করেছে, তাতে ন্যূনতম ভাড়া ২৫ টাকা করার প্রস্তাব রয়েছে এবং মিনিবাসের ক্ষেত্রে তা হবে ৩০ টাকা। মিনিবাস মালিকদের বক্তব্য, সাধারণ বাসে সর্বোচ্চ ২০ জন যাত্রী নেওয়া যাবে। মিনিবাস যেহেতু আরও ছোট, তাই সেখানে ১৫ জনের বেশি যাত্রী তোলা যাবে না। তাই ভাড়া আরও বেশি করা দরকার।

বাস মালিকদের আরও একটি সংগঠন শীঘ্রই তাদের প্রস্তাবিত নয়া ভাড়ার তালিকা প্রকাশ করবে বলে জানা গিয়েছে।

এদিকে কন্টেইনমেন্ট জোন ছাড়া সারা রাজ্যেই আগামী সপ্তাহের মধ্যে বাস পরিষেবা চালুর উদ্যোগ নিয়েছে পরিবহণ দফতর। তবে পরিষেবা দেওয়ার ক্ষেত্রে অবশ্যই যাবতীয় স্বাস্থ্যবিধি ও সরকারি নির্দেশ মেনে চলতে হবে। এই প্রেক্ষিতে বাসের ভাড়া মালিকদের ঠিক করতে বলা হয়। তবে সেই ভাড়া কেবল বর্তমান পরিস্থিতিতেই চালু থাকবে। অতিমারি পরিস্থিতি কেটে গেলে আগের ভাড়াতেই বাস চালাতে হবে মালিকদের বলে সাফ জানায় পরিবহণ দফতর।

তবে যাত্রীদের দাবি, ভাড়া নির্ধারণের বিষয়টি মালিক সংগঠনগুলির উপরে না ছেড়ে সরকারও ভূমিকা নিক।

শুধু বাসের ভাড়াই নয়, কলকাতা ও শহরতলিতে ট্যাক্সির ভাড়াও বাড়ছে। ট্যাক্সির পিছনের আসনে সর্বাধিক দু’জন যাত্রী তোলার সরকারি নির্দেশ রয়েছে। ট্যাক্সি সংগঠনগুলির দাবি, মিটারে যা উঠবে, তার উপর ৩০ শতাংশ বেশি নেওয়ার অনুমতি দিতে হবে পরিবহণ দফতরকে।

Comments
Loading...