রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ১৪৪, মৃত বেড়ে ১০, কেন সবাই পুরো রেশন পায়নি খতিয়ে দেখা হবে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী

রাজ্যে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ল। বেড়েছে মৃতের সংখ্যাও। বৃহস্পতিবার নবান্নে মুখ্যসচিব রাজীবা সিনহা জানান, রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১৪৪। মৃত্যু হয়েছে মোট ১০ জনের।

রাজ্যে আরও বাড়ল করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন ২৪ জন। এর ফলে রাজ্যে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা হল ১৪৪। মৃত্যু হয়েছে ১০ জনের। পাশাপাশি সংক্রমণ মুক্ত হয়েছেন ৯ জন। রাজ্যে মোট ৩৮১১ টি নমুনা পরীক্ষা হয়েছে বলে জানিয়েছেন মুখ্যসচিব।

এদিন রেশন দোকান নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। তিনি বলেন, ৯০% মানুষ একমাসের রেশন সামগ্রী পেয়েছেন। কিন্তু কিছু মানুষ তা পাননি। কেন তাঁরা পুরো রেশন সামগ্রী পাননি তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। পাশাপাশি খাদ্য দফতরে নতুন সচিব নিয়োগ হচ্ছে বলেও জানিয়েছেন মমতা। তাঁর অভিযোগ, কিছু রাজনৈতিক দল উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে রেশন বিলি ব্যবস্থায় গোলমাল করার চেষ্টা করছেন। মমতার বার্তা, ঘোলা জলে মাছ ধরার সময় এটা নয়।

পাশাপাশি কিছু ব্যাঙ্কের কর্মকাণ্ড নিয়েও নিজের অসন্তোষ প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর অভিযোগ, ব্যাঙ্কের কাজকর্মে অনেক ক্ষেত্রেই সোশ্যাল ডিস্ট্যান্সিংয়ের নিয়ম মানা হচ্ছে না।

মুখ্যমন্ত্রী জানান, রাজ্যে লকডাউনের মধ্যে সকাল ৮ টা থেকে বিকেল ৪ টে পর্যন্ত মিষ্টির দোকান খোলা যাবে।

এদিন নবান্নে উপস্থিত সিনিয়র ডাক্তার তথা গ্লোবাল অ্যাডভাইজরি বোর্ডের অন্যতম সদস্য সুকুমার মুখার্জি রাজ্যের বর্তমান করোনা পরিস্থিতি ব্যাখ্যা করেন। বলেন, দেশের অন্যান্য কয়েকটি রাজ্যের তুলনায় বাংলা ভালো জায়গায় আছে। লকডাউন পালনের মধ্যে দিয়ে আরও ভালো জায়গায় যাওয়ার সুযোগ আছে বলেও জানান তিনি।

মুখ্যসচিব জানান, রাজ্যে প্রপার্টি ডিডের ই-রেজিস্ট্রেশন শুরু হয়েছে। করোনাভাইরাস রুখতে লকডাউনের কথা মাথায় রেখে আরও দ্রুততার সঙ্গে কাজটি করা হয়েছে। রাজীবা সিনহা বলেন, এর ফলে এবার থেকে বাড়িতে বসেই কম্পিউটারে সম্পত্তি সংক্রান্ত কাজ করা যাবে। পাশাপাশি করোনা মোকাবিলার কৌশল নিয়ে কেন্দ্রের সঙ্গে রাজ্যের কোনও ভুল বোঝাবুঝি নেই বলেও এদিন দাবি করেছেন মুখ্যসচিব। কেন্দ্র যেভাবে বলেছে সেভাবেই ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

Comments
Loading...