Corona: আক্রান্ত ও মৃত্যুর বিচারে রাজ্যগুলিকে ৪ টি ক্যাটেগরিতে ভাগ করছে কেন্দ্র, ৭ রাজ্যে লকডাউনের মেয়াদ বৃদ্ধির সম্ভাবনা!

১৪ এপ্রিলের পর দেশে লকডাউন উঠবে না থাকবে, কেন্দ্রের তরফে এখনও ইঙ্গিত মেলেনি। তবে দেশে মোট করোনাভাইরাস আক্রান্তের মধ্যে এক তৃতীয়াংশই ৭ টি রাজ্যে ধরা পাড়ায়, সেই রাজ্যগুলিতে ২১ দিনের লকডাউনের পরও এর মেয়াদ বাড়াতে পারে। দেশে ৪,২৮১ টি করোনা পজিটিভ কেসের মধ্যে ১,৩৬৭ আক্রান্তের খবর উঠে আসা ৭ রাজ্য প্রশাসন সূত্রে সোমবার এ ব্যাপারে ইঙ্গিত মিলেছে।
এদিকে নীতি আয়োগের তরফ থেকেও কেন্দ্রকে জমা দেওয়া এক খসড়ায় বলা হয়েছে, যে রাজ্য ও জেলাগুলি বেশি করোনা প্রভাবিত, সেখানে আরও ২৮ দিন গড়াতে পারে লকডাউনের মেয়াদ। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের তরফে গঠন করে দেওয়া নীতি আয়োগের মেডিক্যাল ইমার্জেন্সি ম্যানেজমেন্ট প্ল্যান গ্রুপের জমা দেওয়া খসড়ার প্রেক্ষিতে চিন্তা ভাবনা করছেন আয়োগের সদস্য বিনোদ পাল।

 

কোন কোন রাজ্যে লকডাউনের মেয়াদ বাড়তে পারে? 

কেন্দ্রের তরফে আগেই ঘোষণা হয়েছিল,  দেশে মোট করোনা আক্রান্তের ৮০ শতাংশ ঘটনা ঘটেছে ৬২ জেলায়। এদিকে রাজ্যভিত্তিক একটি তথ্য উঠে আসায়, ৭ রাজ্যের সরকার সোশ্যাল ডিসট্যান্সিংয়ের উপর জোর দিচ্ছে।

 

তেলেঙ্গানা  

তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী কে চন্দ্রশেখর রাও জানিয়েছেন, লকডাউনের মেয়াদ বাড়লে তাঁর আপত্তি নেই। এদিকে রাজস্থান, উত্তরপ্রদেশ, অসম, ছত্তিসগঢ়, ঝাড়খণ্ড সরকারও বলছে, পরের মঙ্গলবার লকডাউন উঠলেও তারা পুরোপুরি নিষেধাজ্ঞা তুলছে না। সংক্রমণ রুখতে সোশ্যাল ডিসট্যান্সিং এর উপর জোর দিয়ে আরও কয়েকটা দিন লকডাউন জারি রাখার কথা ভাবছে তারা।

 

অসম 

উত্তর-পূর্বের এই রাজ্যটিতে ২৬ জনের শরীরে করোনা পজিটিভ পাওয়া গিয়েছে। ১৪ তারিখ যদি লকডাউন তুলে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় কেন্দ্র, তারপর একটি রেজিস্ট্রেশন সিস্টেম চালু করতে উদ্যোগ নিচ্ছে। যাতে লকডাউনের পর যারা রাজ্যে ঢুকবে তাদের শারীরিক পরীক্ষা, সাম্প্রতিক সময়ে বিদেশ ভ্রমণ করেছে কি না দেখে নেওয়া হবে। অসমের স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা জানান, লকডাউন ওঠার পরেও রাজ্যের তরফে কিছু নিষেধাজ্ঞা জারি থাকছে। কয়েকটি অঞ্চলে বিশেষ নজরদারি করা হবে।

 

মহারাষ্ট্র  

মহারাষ্ট্র ও কেরলে পাল্লা দিয়ে বেড়েছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। কখনও আক্রান্তের সংখ্যায় কেরলকে টপকে শীর্ষে পৌঁছেছে মহারাষ্ট্র, কখনও তাকে ছাপিয়ে দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় প্রথমে চলে গিয়েছে কেরল। প্রায় সাড়ে ৭০০ করোনা আক্রান্ত মহারাষ্ট্র ইঙ্গিত দিয়েছে, ১৪ এপ্রিলের পরও মুম্বই, পুনে ইত্যাদি জায়গা, যা এখন করোনার হটস্পট, সেই সব জায়গায় লকডাউন আরও বাড়বে।

 

উত্তরপ্রদেশ  

দিল্লির নিজামুদ্দিনে তাবলিঘি জামাতের জমায়েতের জেরে যোগী রাজ্যে করোনা সংক্রমণ বেড়ে গিয়েছে। যার জেরে ১৪ এপ্রিল লকডাউন ওঠনো হবে কি না তা নিয়ে আলোচনা চলছে বলে জানান উত্তরপ্রদেশ সরকারের এক শীর্ষ আধিকারিক। মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ জানিয়েছেন, লকডাউন ওঠার পরেও নির্দিষ্ট কিছু জায়গায় নিষেধাজ্ঞা জারি থাকবে।

 

রাজস্থান  

আক্রান্তের সংখ্যা ২৭৪ ছাড়ানো রাজস্থানও ‘হাই রিস্ক জোন’গুলি চিহ্নিত করে নিষেধাজ্ঞায় কড়াকড়ি আনছে। ইতিমধ্যে রাজস্থানে একটি কমিটি গঠন করে হাই রিস্ক জোন চিহ্নিত করে ‘স্পেসিফিক এক্সিট স্ট্র‍্যাটেজি’ নেওয়া হয়েছে।

 

ছত্তিসগঢ় 

ছত্তিসগড়ের মুখ্যমন্ত্রী ভুপেশ বাঘেল আবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে চিঠি লিখে জানিয়েছেন, যেভাবে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে তাতে রাজ্যগুলির মধ্যে পরিবহণ এখনই চালু করার প্রয়োজন নেই।

 

ঝাড়খণ্ড  

ঝাড়খণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত সোরেন জানান, সরকার যদি নিশ্চিত হয় যে পরিস্থিতি কিছুটা নিয়ন্ত্রণে এসেছে, তবেই পুরোপুরি লকডাউন উঠবে। তিনি জানান, লকডাউন উঠে গেলে প্রায় ৬ লক্ষ অভিবাসী শ্রমিক রাজ্যে ফিরে আসবে। সেক্ষেত্রে বাড়তি নজর দিতে হবে।

 

মধ্যপ্রদেশ  

যদিও মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিংহ চৌহান জানিয়েছেন, নিষেধাজ্ঞা থাকলেও, ১৫ এপ্রিল থেকে রাজ্যে পণ্য পরিবহণ শুরু করতে হবে। তবে কয়েকটি জেলায় নিষেধাজ্ঞা জারি থাকবে এবং অবস্থা অনুযায়ী রাজ্যে লকডাউন নিয়ে চিন্তাভাবনা করা হবে।

 

লকডাউন নিয়ে কী ভাবছে কেন্দ্র? 

নীতি আয়োগের এক খসড়ায় করোনার প্রভাবের উপর ভিত্তি করে রাজ্যগুলিকে চারটি ক্যাটেগরি-তে আলাদা করার প্রস্তবা দেওয়া হয়েছে। গত সাত দিনে করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় কে এগিয়ে, জন ঘনত্বে সংক্রমণের হার কেমন, কতগুলি পজিটিভ কেস রয়েছে তা খতিয়ে দেখে তালিকা করার কথা বলা হয়েছে। যেমন, যে রাজ্যে ৫০ এর বেশি পজিটিভ কেস পাওয়া গিয়েছে তাদের স্টেজ ৪ এ রাখা, কুড়ির বেশি আক্রান্ত থাকলে সেই রাজ্যকে স্টেজ ৩ তে রাখা, গত সাতদিনে ২০ জন করোনা আক্রান্তের পর যেখানে নতুন আক্রান্তের খবর মেলেনি তাদের স্টেজ ২ এবং ৫ এর কম ও সাতদিনে ১ টিও আক্রান্তের ঘটনা ঘটেনি, তাদের স্টেজ ১ এ রেখে আলাদা তালিকাভুক্ত করার মতো প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। যদিও এ নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে বেশ কয়েকটি জেলায় আরও ২৮ দিন লকডাউন করার কথা ভাবা হচ্ছে বলে খবর।

Comments
Loading...