মহুয়া মৈত্র: প্রধান ভক্তের জন্য আদালতের দরজা অবারিত! অর্ণব মামলায় সুপ্রিম কোর্টের ভূমিকাকে কটাক্ষ তৃণমূল সাংসদের

বম্বে হাই কোর্টের রায়কে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে মঙ্গলবার সুপ্রিম কোর্টে দ্রুত শুনানির আবেদন এবং বুধবার অন্তর্বর্তীকালীন জামিনে মুক্ত অর্ণব গোস্বামী। রিপাবলিক টিভির সম্পাদকের যে কোনও মামলারই কেন দ্রুত শুনানি হয়? প্রধান বিচারপতি বোবদের কি বিশেষ নির্দেশ আছে? এমনই সব তির্যক প্রশ্ন ছুড়ে সুপ্রিম কোর্টের সেক্রেটারি জেনারেলকে চিঠি লিখেছিলেন বার অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট তথা সিনিয়র আইনজীবী দুষ্মন্ত দাভে। বুধবার অর্ণব গোস্বামী জামিন পাওয়ার পরে ওই চিঠির প্রতিবেদন তুলেই রিপাবলিক টিভির সাংবাদিককে তীব্র কটাক্ষ করলেন মহুয়া মৈত্র।

বুধবার সন্ধ্যে সাতটা চার মিনিটে এক ট্যুইটে তৃণমূল সাংসদ লেখেন, সিএএ/ হেবিয়াস কর্পাস/ পরিযায়ী সংক্রান্ত পিটিশন জরুরি নয়। কিন্তু ফের ‘প্রধান ভক্ত’-র আবেদন জরুরি শুনানির জন্য গ্রাহ্য হল। মহুয়ার খোঁচা, সুপ্রিম কোর্ট ফাস্ট ট্র‍্যাক ডেস্ক কি কেবল প্রিয়পাত্রদের জন্য? সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি ও রেজিস্ট্রারকে এর জবাব দেওয়া দরকার বলে দাবি কৃষ্ণনগরের সাংসদের।

এর আগেও বিভিন্ন মামলায় সুপ্রিম কোর্টের ভূমিকার খোলা নিন্দা করেছেন মহুয়া। অর্ণব গোস্বামী মামলাতেও সুপ্রিম কোর্টের বিরুদ্ধে পক্ষপাতিত্বমূলক আচরণের অভিযোগ তুললেন তৃণমূল সাংসদ।

প্রসঙ্গত, সুপ্রিম কোর্টের বার অ্যাসোসিয়েশনের প্রেসিডেন্ট দুষ্মন্ত দাভে চিঠিতে লিখেছিলেন, যেখানে বেআইনি এবং অবৈধভাবে জেলবন্দি কিছু মানুষ শুনানির তারিখের জন্য প্রহর গুনছেন, তখন কীভাবে ও কেন অর্ণব গোস্বামীর বিরুদ্ধে সব মামলার দ্রুত শুনানির দিন ধার্য করে সুপ্রিম কোর্ট? অর্ণব গোস্বামীর বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া মামলার দ্রুত শুনানির ‘স্পেশাল’ নির্দেশও কি প্রধান বিচারপতিই দেন? নাকি সুপ্রিম কোর্টের সেক্রেটারি জেনারেল বা রেজিস্ট্রার অর্ণব মামলার শুনানিতে বিশেষ অগ্রাধিকার দেন? আইনজীবী দাভের চিঠিকে নিয়ে এক প্রতিবেদনের লিংক শেয়ার করে প্রায় একই প্রশ্ন তুললেন মহুয়া মৈত্রও।

Comments
Loading...