আর মাত্র দু’দিন বাকি, জমে উঠেছে ২৫ তম কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব

২৫ তম বর্ষে জমে উঠেছে কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব।  ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের দাপটে ঝড় বৃষ্টির কারণে শনিবার এবং রবিবার সেভাবে দর্শক সমাগম হয়নি এবারে চলচ্চিত্র উৎসব পেক্ষাগৃহগুলিতে। কিন্তু আবহাওয়া পরিষ্কার হতেই সোমবার থেকে ফের পুরনো দৃশ্যর দেখা মিলেছে নন্দন চত্বরে। সকাল থেকেই লম্বা লাইন দিয়ে নন্দন, রবীন্দ্র সদন, শিশির মঞ্চে ছবি দেখেছেন সিনেপ্রেমী আম জনতা। এবারের চলচ্চিত্র উৎসবের বেশ কিছু বহুচর্চিত ছবি দেখানো হচ্ছে উৎসবের মূল পেক্ষাগৃহ নন্দন ১ এ। তাই স্বাভাবিকভাবেই সব থেকে বেশি দর্শক সমাগম হচ্ছে এই পেক্ষাগৃহেই। সকাল ৯ টা থেকে শুরু করে রাত প্রায় ৯ টা সাড়ে ৯টা পর্যন্ত বিভিন্ন সময়ে মোট ৫টি ছবি দেখানো হচ্ছে এখানে। নন্দন ১ এর পাশাপাশি এখানকার অন্যান্য পেক্ষাগৃহগুলিতে এবং রবীন্দ্রসদন, শিশির মঞ্চেও লম্বা লাইন চোখে পড়েছে দর্শকদের। সকালের শোগুলিতেও ভিড় হচ্ছে যথেষ্ট। তবে মূল ভিড়টা হচ্ছে দুপুরের পর থেকে রাত পর্যন্ত।
নন্দন এলাকার পেক্ষাগৃহগুলিতে  বিকেলের কোনও কোনও শোতে ভিড় এতটাই বেশি হচ্ছে যে অনেক দর্শকেই বসার জায়গা না পেয়ে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে ছবি দেখতে হয়েছে। সাধারণত নন্দন, রবীন্দ্রসদন এবং শিশির মঞ্চের মতো পেক্ষাগৃহগুলি এই সময় অতিথি, ডেলিগেটস, মিডিয়া এবং বিভিন্ন ফিল্ম ফেডারেশন ও সোসাইটির সদস্যদের ছবি দেখার জন্য বরাদ্দ থাকে। কিন্তু তা সত্ত্বেও কেন সাধারণ দর্শকদের জন্য এই হলগুলিতে পাস বিলি করা হচ্ছে সেই প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে।
তবে এবারও বিতর্ক পিছু ছাড়ছে না চলচ্চিত্র উৎসবের। গত বছরগুলির মতো এবারও অনেকের অভিযোগ, আগাম কিছু না জানিয়ে অনেক সময় সিনেমা পাল্টে দেওয়া হচ্ছে। বা স্ক্রিনিং ফিল্ম পাল্টে দেওয়ার খবর যখন জানানো হচ্ছে,তখন আর অন্য পেক্ষাগৃহে যাওয়ার বিশেষ সময় হাতে থাকছে না।
তবে শুধু ছবি দেখাই নয়, রবীন্দ্র সদনের উলটো দিকে একতারা মঞ্চে চলচ্চিত্র উৎসব উপলক্ষে রোজ বিকেলে বসছে বিশেষ বিতর্কসভা ‘সিনে আড্ডা’। সিনেমা বিষয়ক বিভিন্ন ইস্যুতে সেই আলোচনা সভায় অংশ নিচ্ছেন টলিউডের পরিচালক, অভিনেতা-অভিনেত্রী, গায়ক-গায়িকারা। এই আড্ডার কথা শুনতেও সেখানে ভিড় জমাচ্ছেন শহরের মানুষ। পাশাপাশি উৎসবের ২৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে গগনেন্দ্র প্রদর্শনশালায় আয়োজন করা হয়েছে বিশেষ প্রদর্ষনীর। ভিড় চোখে পড়েছে সেখানেও।

 

Comments
Loading...