চিকিৎসকদের সম্মান জানাতে ১ জুলাই সরকারি ছুটি ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর, করোনাজয়ীদের নিয়ে কোভিড ওয়ারিয়ার ক্লাব গড়ছে রাজ্য

করোনার বিরুদ্ধে সামনে থেকে লড়াই করা চিকিৎকদের সম্মান জানিয়ে ১ জুলাই সরকারি ছুটি ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর, করোনাজয়ীদের নিয়ে গঠন করা হচ্ছে কোভিড ওয়ারিয়র ক্লাব
করোনা আবহে স্বাস্থ্য কর্মীরা প্রত্যেকে প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে পরিষেবা দিয়ে চলেছেন। রাজ্যের সেই করোনা যোদ্ধাদের কুর্নিশ জানাতে আগামী ১ জুলাই সাধারণ ছুটি ঘোষণা করলেন মুখ্যমন্ত্রী।
১ জুলাই চিকিৎসক তথা বাংলার প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী বিধান রায়ের জন্ম ও মৃত্যু দিন উপলক্ষ্যে চিকিৎসক দিবস পালিত হয়। তাকে সামনে রেখে করোনা পরিস্থিতিতে সামনে থেকে লড়াই করা চিকিৎসক ও স্বাস্থ্য কর্মীদের সম্মান জানিয়ে বুধবার সরকারি ছুটি দেওয়া হচ্ছে বলে জানান মমতা ব্যানার্জি।
সোমবার নবান্নে সাংবাদিক বৈঠকে মমতা বলেন, করোনার বিরুদ্ধে সামনে থেকে লড়াই করা এই যোদ্ধা ও তাঁদের পরিবারকে সম্মান জানিয়ে আগামী বুধবার সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হচ্ছে। মুখ্যমন্ত্রীর পরামর্শ এই দিনটিকে জাতীয় ছুটির দিন হিসেবে ঘোষণা করুক কেন্দ্র। পাশাপাশি, রাজ্যে করোনাকে জয় করে যাঁরা সুস্থ হয়ে উঠেছেন, তাঁদের নিয়ে কোভিড ওয়ারিয়র ক্লাব গঠনের কথা জানান মুখ্যমন্ত্রী। তাঁরা করোনা চিকিৎসায় সরকারকে সাহায্য করবেন। তাঁদের কিছু ভাতা দেবে রাজ্য।
মুখ্যমন্ত্রী আরও জানান, করোনা পরিস্থিতিতে অন্যান্য চিকিৎসা পরিষেবা যাতে ব্যাহত না হয়, তার জন্য এবার থেকে টেলিমেডিসিন পরিষেবা চালু করা হচ্ছে। ১ জুলাই, ডক্টরস ডে থেকেই তার সূচনা হবে। যাঁরা হাসপাতালে চিকিৎসা করানোর জন্য যেতে পারবেন না, তাঁরা নির্দিষ্ট নম্বরে ফোন করেই চিকিৎসকদের পরামর্শ নিতে পারবেন বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। তাঁর আরও ঘোষণা, এবার থেকে করোনাজয়ীরা হাসপাতালে গিয়ে নিজেদের অভিজ্ঞতার কথা বলে অন্য রোগীদের মনোবল বাড়াবেন। তাহলেই করোনার বিরুদ্ধে লড়াই সহজ হবে বলে।
পাশাপাশি, দূরত্ববিধি মেনে কলকাতায় মেট্রো পরিষেবা শুরুর ব্যাপারে ফের আবেদন করেন মুখ্যমন্ত্রী। সামাজিক দূরত্ব বিধি মেনে মেট্রো চালানো সম্ভব নয় বলে রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিবের সঙ্গে বৈঠকে জানিয়েছেন মেট্রোর আধিকারিকরা। কিন্তু মেট্রো চালানো হবে কি না, সে বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেবে রেলবোর্ড। এই বিষয়টি মানবিকভাবে দেখার আবেদন করেন মমতা।
এদিন মুখ্যমন্ত্রী জানান, রাজ্য সরকারের তরফে ৩ কোটি মাস্ক তৈরি করা হবে, যেগুলি ছাত্রছাত্রী ও ১০০ দিনের কাজ করা কর্মীদের দেওয়া হবে। তিনি বলেন, বাংলায় প্রায় ৬৫ শতাংশ কোভিড থেকে ভালো হয়ে উঠেছেন।

Comments
Loading...