অমিত মিত্রের সাংবাদিক বৈঠক কেন দেখান না আপনারা, দিল্লি থেকে যে যা পারছে বলছে, তাই দেখিয়ে যাচ্ছেন। নবান্নে সাংবাদিক বৈঠক শুরুর মুখে সংবাদমাধ্যমের প্রতিনিধিদের কাছে উষ্মা প্রকাশ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। তাঁর প্রশ্ন, সরকারের বক্তব্য সংবাদমাধ্যমে কোথায়?
রবিবার কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন পশ্চিমবঙ্গের জন্য যে ভার্চুয়াল জনসভা করেন, সেখানে রাজ্যের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি সহ একাধিক বিষয় নিয়ে অভিযোগ তুলেছিলেন। সেই সমস্ত অভিযোগের জবাব দিতে জুমের মাধ্যমে সোমবারই সাংবাদিক বৈঠক করেন রাজ্যের অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র। সেখানে তথ্য পরিসংখ্যান তুলে ধরে তিনি কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর সমস্ত অভিযোগের জবাব দিয়েছেন। মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য, রাজ্যের অর্থমন্ত্রীর সেই জবাব যথেষ্ট গুরুত্ব দিয়ে সম্প্রচার করেনি কিছু সংবাদমাধ্যম।
কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অভিযোগ করেছেন, নবান্ন থেকে তালিকা না পাঠানোয় কেন্দ্রের গরিব কল্যাণ যোজনা থেকে বাদ পড়েছে বাংলার জেলা। রাজ্য বিজেপিও কিছুদিন ধরেই রাজ্যের বিরুদ্ধে তালিকা না দেওয়ার অভিযোগে সোচ্চার।
নির্মলা সীতারমন এবং রাজ্য বিজেপির সেই দাবি উড়িয়ে পাল্টা পরিসংখ্যান পেশ করেছেন রাজ্যের অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র। অমিতবাবু বলেন, কেন্দ্রীয় সরকার লাগাতার মিথ্যাচার চালাচ্ছে। তালিকা না দেওয়া প্রসঙ্গে অমিত মিত্র বলেন, ২৩ জুন দুপুরে দিল্লির পঞ্চায়েতিরাজ মন্ত্রক থেকে চিঠি আসে। সেদিনই সন্ধে ৭ টার মধ্যে রাজ্যের জেলাওয়াড়ি পরিযায়ী মানুষের তালিকা পাঠিয়ে দেওয়া হয় দিল্লিতে। রাজ্যের অর্থমন্ত্রী বলেন, ২৫ জুন ফের চিঠি আসে। সেবার চাওয়া হয় ব্লক স্তরের তথ্য। সেই তথ্যও সঙ্গে সঙ্গে দিল্লিতে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। অমিত মিত্রের প্রশ্ন, এবার কি মিথ্যে বলার জন্য মানুষের কাছে ক্ষমা চাইবেন মাননীয় সীতারমন?
অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্রের অভিযোগ, সম্পূর্ণ রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে মমতা ব্যানার্জির নাম করে মিথ্যে বলেছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। রাজ্যের অর্থমন্ত্রীর দাবি, দেশের বেকারত্বের হার প্রায় ২৪ শতাংশ। এরকম খারাপ অবস্থা জীবদ্দশায় দেখেননি কেউ। কিন্তু বাংলায় বেকারত্ব জাতীয় হারের অনেক নীচে, মাত্র ১৭ শতাংশ, CMIE এর তথ্য তুলে ধরে দাবি অমিত মিত্রের।
অমিত মিত্রের আক্রমণ, মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জির নাম নিয়ে মিথ্যাকে আধার করে কথা বললেন কী করে অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। ভারতের অর্থমন্ত্রীর মুখে এরকম নির্লজ্জ রাজনৈতিক মিথ্যাচার কি শোভা পায়, প্রশ্ন তোলেন রাজ্যের অর্থমন্ত্রী। অমিতবাবুর দাবি, পরিযায়ী সমস্যা থেকে শুরু করে কোভিড মোকাবিলা, প্রতিটি ক্ষেত্রে রাজনৈতিক উদ্দেশ্যে চালিত হয়েছে কেন্দ্রের নীতি। আর তাই মিথ্যাচারের আশ্রয় নিতে হচ্ছে মন্ত্রীদের।
কিছুদিন আগেই প্রধানমন্ত্রী মোদীকে মেপে কথা বলার পরামর্শ দিয়েছিলেন প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিংহ। সোমবার কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর উদ্দেশেও একই পরামর্শ দিলেন রাজ্যের অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র।
সীতারমন আরও দাবি করেছিলেন, কোভিড পর্বে কেন্দ্র বাংলাকে এখনও পর্যন্ত ১০ হাজার ১০৬ কোটি টাকা দিয়েছে কেন্দ্র। এই প্রসঙ্গে রাজ্যের অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্রের দাবি, এটি পুরোপুরি মিথ্যা। রাজ্য কিছুই পায়নি। তিনি বলেন, রাজ্যের অর্থমন্ত্রী হিসেবে চ্যালেঞ্জ করে বলছি, কোভিড মোকাবিলায় এক টাকাও কেন্দ্রের কাছ থেকে পায়নি রাজ্য।

ধারাবাহিকভাবে পাশে থাকার জন্য The Bengal Story র পাঠকদের ধন্যবাদ। আমরা যে ধরনের খবর করি, তা আরও ভালোভাবে করতে আপনাদের সাহায্য আমাদের উৎসাহিত করবে।

Login Support us