রবিবার থেকেই NRC, CAB-এর বিরুদ্ধে পথে তৃণমূল, কলকাতায় মিছিলে হাঁটবেন মমতা

নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন ও এনআরসির বিরোধিতায় পথে নামছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি (No NRC In Bengal)। দু’দিনের বিজনেস কনক্লেভ শেষে শুক্রবার দিঘায় সাংবাদিক বৈঠক করে তৃণমূল নেত্রীর ফের ঘোষণা, বাংলায় কোনওভাবেই নাগরিকত্ব আইন কিংবা নাগরিকপঞ্জি লাগু হবে না। আগামী চার দিন নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন ও এনআরসির বিরুদ্ধে পথে নামছে তৃণমূল। নেত্রী জানিয়ে দেন, তিনিও রাস্তায় থাকবেন। মমতা বিজেপি ছাড়া সমস্ত রাজনৈতিক দলকে তাঁর দলের ডাকা মিছিলে সামিল হওয়ার জন্য আবেদন জানান। মিছিলে পা মেলাতে বিদ্বজ্জনদেরও বার্তা দেন তিনি।
রবিবার রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় ‘নো ক্যাব, নো এনআরসি’ মিছিল হবে বলে ঘোষণা করেন মমতা (No NRC In Bengal)। সোমবার থেকে কলকাতাতেও হবে মিছিল। সেদিন বি আর আম্বেদকরের মূর্তি থেকে মেয়ো রোডে গান্ধী মূর্তির পাদদেশ হয়ে মিছিল যাবে জোড়াসাঁকো ঠাকুর বাড়ি অবধি। মিছিলে মুখ্যমন্ত্রী নিজে হাঁটবেন। পরের দিন, মঙ্গলবার যাদবপুর এইট বি বাসস্ট্যান্ড থেকে মিছিল বেরবে। সেই মিছিল শেষ হবে গান্ধী মূর্তির পাদদেশে। একইভাবে বুধবারও নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরোধিতায় মিছিল হবে।
মমতার কথায়, যখন দেশের অর্থনীতিতে কালো মেঘের ছায়া পড়েছে, তখন উন্নয়নের কাজ বন্ধ করে বিভাজনের খেলায় মেতেছে বিজেপি। এদিন ফের নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন ও এনআরসি নিয়ে তাঁর সরকারের অবস্থান পরিষ্কার করে দিয়ে মুখ্যমন্ত্রী জানান, গায়ের জোরে কেন্দ্র আইন পাশ করালেও বাংলায় তিনি তা কখনওই লাগু হতে দেবেন না। এর জন্য তাঁকে জেলে যেতে হলেও নিজের অবস্থান থেকে একচুলও সরবেন না।
মমতা বলেন, ভারতের মতো বিশাল দেশের প্রতিটি রাজ্যের আলাদা আলাদা আবেগ রয়েছে। সেখানে ধর্মের ভিত্তিতে বিভাজন করা উচিত নয়। তাঁর অভিযোগ, দেশের জন্য নয়, মোদী সরকার নিজের দলের এজেন্ডা ও সঙ্ঘ পরিবারকে সন্তুষ্ট করতেই আগুন নিয়ে খেলছে। গরিব মানুষের উপর অত্যাচার করার জন্যই এই নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন আনা হয়েছে। মমতার দাবি, এই আইনের কারণেই প্রতিবেশী বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্ক খারাপ হওয়ার মুখে। জাপানের প্রধানমন্ত্রী সফর বাতিল করছেন, যা দেশের পক্ষে লজ্জার। কেন্দ্রের নয়া আইনের বিরুদ্ধে অসম, ত্রিপুরার আন্দোলনকে পূর্ণ সমর্থন করছেন বলে জানান মুখ্যমন্ত্রী। এ রাজ্যে গণতান্ত্রিকভাবে এনআরসি ও নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদে গণআন্দোলনের ডাক দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী। পাশাপাশি এর জন্য আগামী ১৭ ডিসেম্বর তাঁর দিল্লি সফর বাতিল করছেন বলে ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী।

Comments
Loading...