পুজোর মরশুমে বাংলা সহ একাধিক রাজ্যে ভারী বৃষ্টির পূর্বাভাস, জোড়া নিম্নচাপ ঘনীভূত হচ্ছে আন্দামান ও বঙ্গোপসাগরে

রবিবার থেকে রাজ্যজুড়ে ফের বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস দিয়েছে হাওয়া অফিস। এর মধ্যে পুজোর সময় রাজ্যে ভারী বর্ষণের আশঙ্কা থেকে যাচ্ছে। আবহাওয়া দফতর জানাচ্ছে, চলতি সপ্তাহেই উত্তর আন্দামান সাগর ও বঙ্গোপসাগরে দুটি নিম্নচাপ রেখার সৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এর জেরে পশ্চিমবঙ্গ-সহ ভারতের বেশ কয়েকটি রাজ্যে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশী বৃষ্টি হতে পারে। পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, দক্ষিণ ভারত, পশ্চিম হিমালয়, ও উত্তর-পূর্ব ভারত ছাড়া দেশের অধিকাংশ অঞ্চলে ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাত হবে। আবহাওয়া দফতরের আবহাওয়া বিজ্ঞানী এ কে দাস জানান, দুটি নিম্নচাপ রেখা সৃষ্টি হওয়ার ফলে দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমি বাতাস এখনই বিদায় নিচ্ছে না। ২২শে অক্টোবরের পর তার প্রস্থান ঘটতে পারে।
সাধারণত, প্রতি বছর ১৭ সেপ্টেম্বর থেকে ১৫ অক্টোবরের মধ্যে আমাদের দেশ থেকে বর্ষা বিদায় নেয়। কিন্তু আবহাওয়া দফতরের পূর্বাভাস, গত শুক্রবার প্রথম নিম্নচাপ রেখাটি তৈরি হয়েছে উত্তর আন্দামান সাগর ও সংলগ্ন বঙ্গোপসাগরে। এরপর তা ধীরে ধীরে উত্তর-পশ্চিম দিকে সরে যাবে এবং আগামী ১১ই অক্টোবর অর্থাৎ, রবিবার দুপুর নাগাদ অন্ধ্রপ্রদেশের উত্তর ভাগ ও দক্ষিণ ওড়িশা উপকূলে পৌঁছবে। এর জেরে গভীর নিম্নচাপ সৃষ্টি হবে ওই সব অঞ্চলে। ১৪ অক্টোবর নাগাদ দ্বিতীয় নিম্নচাপটি ধীরে ধীরে ঘূর্ণিঝড়ের আকার নিতে পারে। যার ফলে অক্টোবর থেকে সেই ডিসেম্বর পর্যন্ত ঘূর্ণিঝড়ের মরসুম থাকছে।
গত মে মাসেই বাংলা ও ওড়িশার উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া আমপান ও জুনে মহারাষ্ট্রে নিসর্গের দাপটে বিপুল ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। তারপরেও ফের ঘূর্ণিঝড়ের পূর্বাভাস কপালে ভাঁজ ফেলেছে আবহাওয়াবিদদের। হাওয়া অফিস জানাচ্ছে, শীত আসতে এখনও কিছুদিন দেরী থাকলেও, নিম্নচাপের জেরে যে বৃষ্টিপাত হবে তাতে উত্তর-পশ্চিম ভারতে চলতি সপ্তাহে রাতের দিকে তাপমাত্রা অনেকটা কমবে।

Comments
Loading...