গাজীপুর সীমানায় সৌগত রায়দের আটকে দিল দিল্লি পুলিশ

বিষয়টি সংসদে তুলবেন বলে জানিয়েছেন সৌগত রায়

কৃষকদের অবস্থা খতিয়ে দেখতে গিয়ে গাজীপুর সীমান্তে পুলিশি বাধার মুখে তৃণমূলের বর্ষীয়ান সাংসদ সৌগত রায় সহ একাধিক বিরোধী নেতা। বৃহস্পতিবার গাজীপুর সীমান্তে কৃষকদের সঙ্গে দেখা করতে যান ১৫ জন বিরোধী নেতা। এদের মধ্যে ছিলেন তৃণমূলের প্রবীন সাংসদ সৌগত রায়। এডিএমকে নেত্রী কানিমোঝি, এনসিপি নেত্রী সুপ্রিয়া সুলে, শিরোমণি অকালি দলের সাংসদ হরসিমর‌ৎ কউর-সহ আরও অনেকে। সেখানেই বাধা দেওয়া হয় তাঁদের। 

সৌগত রায় অভিযোগ করে বলেন, কৃষকদের সঙ্গে দেখা করতে এসে পুলিশি বাধার মুখে পড়তে হল। বিষয়টি সংসদে তুলবেন বলেও জানিয়েছেন সৌগত রায়। 

শিরোমণি অকালি দলের সাংসদ হরসিমর‌ৎ কউর সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, কৃষকদের দুরবস্থা নিজের চোখে দেখলাম, কাঁটাতারের বেড়া দিয়ে আটকে রাখা হচ্ছে। সবরকম পরিষেবা থেকে বঞ্চিত। বিষয়টি সংসদে উত্থাপন করার জন্যই সরেজমিনে দেখতে এসেছি।

এনসিপি সাংসদ সুপ্রিয়া সুলের বক্তব্য, কৃষকদের পাশে আমরা সবসময় আছি, এই আশ্বাস দিতে এসেছিলাম।

বিরোধীরা আন্দোলনকারীদের দেখা করতে আসার খবর পেয়েই আন্দোলনকে স্তব্ধ করার জন্য পুঁতে রাখা পেরেক তোলার কাজ শুরু করে প্রশাসন। সেই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়।

গত ২ মাস ধরে কৃষক আন্দোলনের জেরে উত্তপ্ত রাজধানী দিল্লি সহ গোটা দেশ। সংসদের চলতি অধিবেশন অচল হয়েছে বারবার। কৃষক নেতাদের অভিযোগ, আন্দোলন প্রতিহত করতে ইন্টারনেট বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছে জল, বিদ্যুতের সংযোগ। এই অবস্থায় বৃহস্পতিবার বিরোধী দলের নেতারা গাজিপুর সীমানায় কৃষকদের সঙ্গে দেখা করতে যান। 

প্রতিদিনই বড় হচ্ছে কৃষক আন্দোলন। শনিবার “চাক্কা জ্যাম”-এর ডাক দিয়েছে আন্দোলনরত কৃষকরা। এই কর্মসূচিতে দেশের সর্বত্র জাতীয় সড়ক এবং হাইওয়েগুলিতে যানবাহন চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে আন্দোলনরত কৃষক সংগঠনগুলির তরফে।

Comments
Loading...