এবার লাভজনক ইন্ডিয়ান অয়েলের শেয়ার বিক্রির সিদ্ধান্ত মোদী সরকারের

গাড়ি শিল্প থেকে এফএমসিজি সেক্টর বা তথ্যপ্রযুক্তি সংস্থা সর্বত্রই মন্দার ছাপ স্পষ্ট। গত ৬ বছরের মধ্যে দেশের আর্থিক বৃদ্ধির হার সর্বনিম্ন হয়েছে। ২০১৯ সালে ভারতের জিডিপির হার ৫.৬ শতাংশ হবে বলে পূর্বাভাস দিয়েছ মুডিস ইনভেস্টরস সার্ভিস। এদিকে রেল থেকে এয়ারলাইনস, বিভিন্ন রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার বেসরকারিকরণের রাস্তা নিয়েছে মোদী সরকার। এবার সামনে এল চরম লাভজনক সরকারি সংস্থা ইন্ডিয়ান অয়েলের হোল্ডিং বিক্রির পরিকল্পনাও। ইংরেজি নিউজ পোর্টাল ‘দ্য প্রিন্ট’ এর এক প্রতিবেদন অনুযায়ী, আগামী সপ্তাহের মধ্যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মন্ত্রিসভা ইন্ডিয়ান অয়েল সহ বেশ কয়েকটি সংস্থার হোল্ডিং ৫১ শতাংশের নীচে নিয়ে যাবে। ওই প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, ইন্ডিয়ান অয়েলের ২৬.৪ শতাংশ হোল্ডিং বিক্রির পরিকল্পনা নিয়েছে মোদী সরকার। যার আনুমানিক মূল্য ৩৩০ বিলিয়ন টাকা।
ইন্ডিয়ান অয়েলে সরাসরি ভারত সরকারের নিজস্ব শেয়ার রয়েছে ৫১.৫ শতাংশ এবং লাইফ ইন্সিওরেন্স কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়ার মধ্য দিয়ে আরও ২৫.৯ শতাংশ। এদিকে রাজস্ব আয় ঝিমিয়ে পড়ায় চলতি আর্থিক বছরে ১৪.৬ বিলিয়ন ডলারের সম্পদ বিক্রির রাস্তা নিয়েছে বিজেপি সরকার। এবার ইন্ডিয়ান অয়েলের ২৬.৪ শতাংশ হোল্ডিং বিক্রির পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। শুধু ইন্ডিয়ান অয়েলই নয়, মোদীর মন্ত্রিসভায় ভারত পেট্রোলিয়াম কর্পোরেশন, শিপিং কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়া এবং কন্টেনার কর্পোরেশন অফ ইন্ডিয়ার বেসরকারিকরণ নিয়েও আলোচনা হবে। কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমন কিছুদিন আগে জানিয়েছিলেন,’কেস টু কেস বেসিস’-এ বিভিন্ন রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার হোল্ডিং কমিয়ে ফেলবে সরকার। সেই সূত্র ধরে ইন্ডিয়ান অয়েল, ওএনজিসি, এনটিপিসি লিমিটেডের মতো সংস্থার অংশ বিক্রির পরিকল্পনা হয়ে গিয়েছে।

 

Comments
Loading...