হস্টেলের বেড ভাড়া ২০ থেকে বেড়ে ৬০০ টাকা! বিপুল ফি বৃদ্ধির বিরুদ্ধে নাছোড় আন্দোলনে জেএনইউ

জেএনইউয়ের হস্টেলের এক বেডের রুমে থাকতে আগে যেখানে একজন পড়ুয়াকে দিতে হত ২০ টাকা, নতুন নিয়মে তা বাড়িয়ে করা হচ্ছে ৬০০ টাকা। একইভাবে দুই বেডের রুমের ভাড়া যেখানে ছিল ১০ টাকা, তা বেড়ে হবে ৩০০ টাকা। আগে পড়ুয়াদের সার্ভিস চার্জ বাবদ কোনও টাকা দিতে হত না। কিন্তু নতুন নিয়মে ১৭০০ টাকা করে তাঁদের দিতে হবে। এককালীন মেস সিকিউরিটি (ফেরতযোগ্য) হিসেবে আগে পড়ুয়ারা দিতেন ৫৫০০ টাকা করে। এবার তাঁদের দিতে হবে ১২ হাজার টাকা।

পড়ুয়াদের দাবি, এক ধাক্কায় ৩০০ শতাংশ ফি বৃ্দ্ধি করেছে কর্তৃপক্ষ। এছাড়াও হস্টেলে থাকার জন্য নতুন করে বিভিন্ন বিধি নিষেধও আরোপ করেছে কর্তৃপক্ষ। যে ফি বৃদ্ধির সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে পথে নেমেছেন জেএনইউয়ের পড়ুয়ারা। কর্তৃপক্ষ নতুন নিয়মের মাধ্যমে সমাজের আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়া শ্রেণির মেধাবী পড়ুয়াদের আটকাতে চাইছে বলে দাবি করছেন আন্দোলনকারী ছাত্রছাত্রীরা।

নতুন হস্টেল নীতিতে বলা হয়েছে, রাত সাড়ে ১১ টার পর কেউ ঘরের বাইরে থাকতে পারবে না। যা নিয়ে তীব্র আপত্তি করেছেন পড়ুয়ারা। পাশাপাশি সাড়ে ১০ টার পর হস্টেলে এসে কেউ কোনও পড়ুয়ার সঙ্গে দেখা করতে পারবেন না। রাতে বাইরে থাকতে হলে পড়ুয়াদের আগে থেকে হস্টেল ওয়ার্ডেনের কাছে অনুমতি নিতে হবে। হস্টেলের কোনও ক্ষতি হলে পড়ুয়াকে জরিমানা দিতে হবে ১০ হাজার টাকা। কর্তৃপক্ষ মনে করলে কাউকে হস্টেলে ঢুকতে দিতে অস্বীকার করতে পারবেন। নতুন নিয়মের কোনওটাই পড়ুয়ারা মানবেন না বলে সাফ জানিয়েছেন।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের একাংশের যুক্তি, গত ৩০ বছর ধরে রুম ভাড়ার কোনও বদল হয়নি। একইভাবে হস্টেল ফি বাড়েনি শেষ এক দশক। যা বাস্তবসম্মত নয়। তাই ফি বৃদ্ধি ন্যায্য। যদিও কর্তৃপক্ষের এই যুক্তি মানতে নারাজ ছাত্রসমাজ। তাঁদের দাবি, ফি বৃদ্ধির মাধ্যমে জেএনইউকে দরিদ্র মেধাবীদের ধরাছোয়ার বাইরে নিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করা হচ্ছে।

Comments
Loading...