মমতা: প্রধানমন্ত্রীর মিটিংয়ে আমন্ত্রণ ছিল না, ডাকলে অবশ্যই থাকতাম

শুনলাম আজ প্রধানমন্ত্রী মিটিং করছেন। শুনেছি যে সব রাজ্যে করোনার বাড়াবাড়ি হয়েছে তাদের মুখ্যমন্ত্রীরা ছিলেন। আমাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়নি। ডাক পেলে নিশ্চয়ই যেতাম। প্রধানমন্ত্রীর করোনা-বৈঠক নিয়ে বললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি।

শারীরিক ভাবে প্রচার নিষিদ্ধ হওয়ায় তৃণমূল নেত্রী এখন কেবল মাত্র ভার্চুয়াল প্রচার করবেন। তেমনই একটি ভার্চুয়াল সভায় তিনি বলেন,
বাংলার অক্সিজেন অন্য কোথাও দেওয়া যাবে না। বাংলায় অক্সিজেন দেয় সেল। বিজেপি বলে দিয়েছে উত্তরপ্রদেশে দিতে। দেশজুড়ে অক্সিজেন হাহাকারের মধ্যে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ আনলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। শুক্রবার পশ্চিম বর্ধমানের আসানসোলে সাংবাদিক সম্মেলন করেন তৃণমূল নেত্রী। সেখান থেকে তিনি জানান, আমি প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দিয়ে জানিয়েছি, আমাদের অক্সিজেন অন্য কোনও রাজ্যে যাবে না। আমি রাজ্যে আরও ৫ হাজার অক্সিজেনের ব্যবস্থা করেছি। শিল্পাঞ্চলের জন্য নির্ধারিত অক্সিজেন কোভিডে ব্যবহার করা হচ্ছে বাংলায়।

দেশজুড়ে করোনার ওষুধ আর অক্সিজেন অমিল। এই অবস্থায় কেন্দ্রীয় সরকারকে বিঁধে সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে, অক্সিজেনের অভাবে মানুষ মারা যাচ্ছেন! ঠিক তখনই অক্সিজেন নিয়ে কেন্দ্রকে একহাত নিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জি। এদিন করোনা ওষুধ নিয়ে তিনি বিজেপিকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন গুজরাতে বিজেপি পার্টি অফিস থেকে কোভিড ইঞ্জেকশন দেওয়া হচ্ছে। আর অন্য জায়গায় মানুষ মারা যাচ্ছে ওষুধের অভাবে।

তিনি আরও বলেন, বাংলা দখল করতে গিয়ে দেশকে সংকটের মধ্যে ফেলে দিয়েছে বিজেপি। ২ লাখ পুলিশ ফোর্স এ রাজ্যে এসেছে। সেখান থেকেও করোনা ছড়াচ্ছে। কেন্দ্রের অবহেলার জন্য দেশে করোনা বৃদ্ধি হয়েছে দাবি করেন তৃণমূল নেত্রী।

Comments
Loading...