৬৭ হাজার ৪৯০ টাকার কয়েন দিয়ে স্কুটি কিনলেন মধ্য প্রদেশের এক যুবক! খুচরো গুনতে শো-রুম কর্মীদের লাগল প্রায় ৩ ঘন্টা

ডিজিটাল ইন্ডিয়ার পক্ষে জোর সওয়াল করছে কেন্দ্র। নগদহীন অর্থনীতির দিকে যখন এগোচ্ছে দেশ, তখন দীপাবলীর জন্য স্কুটি কিনতে প্রায় ৬৮ হাজার টাকার কয়েন বস্তায় ভরে দোকানে হাজির এক যুবক! ঘটনাটি ঘটেছে মধ্য প্রদেশের সাতনায়। যুবকের এই কাণ্ড দেখে হতবাক দোকানের কর্মীরা।
দিওয়ালি ও ধনতেরাস উপলক্ষ্যে নতুন স্কুটি কিনতে স্থানীয় মোটর বাইক শো-রুমে গিয়েছিলেন মধ্য প্রদেশের সাতনার বাসিন্দা রাকেশকুমার গুপ্তা। আজকাল বেশি টাকায় কোনও জিনিস কিনতে গেলে সবাই সচরাচর ক্রেডিট বা ডেবিট কার্ড ব্যবহার করেন। কিন্তু কৃষ্ণা হন্ডা ডিলারশিপে রাকেশকুমার পৌঁছেছিলেন ৬৭ হাজার ৪৯০ টাকার কয়েনেরর বস্তা নিয়ে।
রাকেশকুমারের কথায়, বেশ কিছুদিন ধরেই তিনি যাতায়াতের সুবিধার জন্য স্কুটি কেনার কথা ভাবছিলেন। আর অনেকের মতো দিওয়ালি ও ধনতেরাসকে তিনি ও তাঁর পরিবারও শুভ দিন হিসেবে পালন করেন। তাই ধনতেরাসের দিনকেই স্কুটি কেনার জন্য বেছে নিয়ে স্থানীয় হন্ডা শো-রুমের উদ্দেশ্যে রওনা দেন রাকেশকুমার। সঙ্গে নেন বহুদিন ধরে জমানো এক বস্তা কয়েন। শো-রুমে পৌঁছনো মাত্রই নিজের পছন্দের হন্ডা অ্যাকটিভা স্কুটি বেছে নেন রাকেশকুমার গুপ্তা। কিন্তু টাকা নেওয়ার সময় প্রথমে কিছুটা হকচকিয়ে গিয়েছিলেন শো-রুমের কর্মীরা। রাকেশকুমার যে স্কুটির পুরো পেমেন্টই করতে চান কয়েনের বিনিময়ে! অগত্যা ক্রেতার ইচ্ছেকে সম্মান জানিয়ে শো-রুমের কর্মীরা বসে পড়েন খুচরো গুনতে। শো-রুম কর্মীরা জানান, ৬৭ হাজার ৪৯০ টাকা গুনতে তাঁদের প্রায় ৩ ঘন্টা মতো সময় লেগে গিয়েছিল।

এই ঘটনায় বছর দুই আগের জয়পুরের এক কিশোরের বাইক কেনার কথা মনে পড়ে গিয়েছে অনেকের। যশ নামে বছর তেরোর সেই কিশোর বোন রুপালিকে ৬২ হাজার টাকার স্কুটি কিনে দিয়েছিল খুচরো টাকার বিনিময়ে।

 

Comments
Loading...