অমীমাংসিতই থেকে গেল সবরীমালা ইস্যু! কেন ঐকমত্য হতে পারলেন না সুপ্রিম কোর্টের ৫ বিচারপতি?

সবরীমালা মন্দিরে মহিলাদের প্রবেশাধিকার সংক্রান্ত রায় পুনর্বিবেচনার আর্জি সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ পাঠিয়েছে বৃহত্তর বেঞ্চে। ৭ বিচারপতির বেঞ্চে চলবে সেই পুনর্বিবেচনার আর্জির বিচার। বৃহস্পতিবার এমনটাই জানিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। অর্থাৎ, মীমাংসা হল না সবরীমালা মামলার। যদিও আগের রায় নিয়ে কিছু জানায়নি সুপ্রিম কোর্ট।
কিন্তু কেন অমীমাংসিত রয়ে গেল সবরীমালা রায়? উত্তর লুকিয়ে রায়পত্রে। বৃহস্পতিবার রায় দিতে দিয়ে ঐকমত্যে আসতে পারেননি প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈয়ের নেতৃত্বাধীন ৫ বিচারপতির বেঞ্চ। সবকটি রিভিউ পিটিশন এবং রিট মামলা খারিজ করে গত বছরের সেপ্টেম্বরের রায়ই প্রতিপালনের নির্দেশ লেখেন বিচারপতি আর এফ নরিমান এবং বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড়। বাকি ৩ বিচারপতির রায় ছিল ভিন্ন।
প্রধান বিচারপতি রঞ্জন গগৈ, বিচারপতি এ এম খানউইলকর এবং বিচারপতি ইন্দু মালহোত্র তাঁদের রায়ে জানান, ধর্মীয় স্থানে মহিলাদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞার বিষয়টি কেবলমাত্র সবরীমালাতেই আবদ্ধ নয়। বরং এটি একটি বৃহত্তর বিতর্কের অংশ, যাতে জুড়ে রয়েছে অন্যান্য ধর্ম সম্প্রদায়ও। সবরীমালা মামলার সঙ্গেই মসজিদে মহিলা প্রবেশাধিকার এবং বোহরা সম্প্রদায়ের মধ্যে চলে আসা নারী অঙ্গ ছেদের বিষয়েও ফয়সালা করতে প্রয়োজন একটি বৃহত্তর বেঞ্চের।
যদিও সংখ্যাগরিষ্ঠ বিচারপতিরা শীর্ষ আদালতের দেওয়া ২০১৮ সালের ২৮ সেপ্টেম্বরের রায় নিয়ে কিছু বলেননি, সেই রায়কে স্থগিত ঘোষণাও করেননি। যে রায়ে সুপ্রিম কোর্ট নির্দেশ দিয়েছিল, ঋতুমতী মহিলারা সবরমতী মন্দিরে প্রবেশ করতে পারবেন।
ওই সময় তৎকালীন প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের নেতৃত্বাধীন ৫ বিচারপতির বেঞ্চ সবরীমালা মন্দিরে ঋতুমতী মহিলাদের প্রবেশাধিকার দিয়েছিল। কিন্তু সেই রায়ের প্রকাশ্য বিরোধিতা করে হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলো। রায় না মানার পথে হাঁটে বিজেপি-আরএসএস। এদিকে সুপ্রিম কোর্টের রায়কে স্বাগত জানিয়ে তা মানতে নিজেদের কর্তব্যের কথা জানিয়ে দেয় কেরলের বামপন্থী সরকার। এই দুইয়ের বিরোধে হিংসাত্মক কার্যকলাপ শুরু হয় কেরল জুড়ে। প্রথমে রায়কে স্বাগত জানালেও পরে ভাবাবেগের দোহাই দিয়ে সবরীমালা নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায় মানেনি কংগ্রেসও। সুপ্রিম কোর্টের সবরীমালা রায় পুনর্বিবেচনার জন্য ৬৫টি রিভিউ পিটিশন দায়ের হয়। এবছর ফেব্রুয়ারিতে সেই মামলার শুনানি শেষ হয়েছিল। স্থগিত রাখা হয়েছিল রায়দান। বৃহস্পতিবার সবরীমালা মামলার রায় দিতে গিয়ে, মামলাকে ৭ বিচারপতির বৃহত্তর বেঞ্চের কাছে পাঠিয়েছে ৫ বিচারপতির বেঞ্চ।

সবরীমামলা রায় নিয়ে বিভক্ত ৫ বিচারপতি

Comments
Loading...