এবার বার্তা সরাসরি শিশির অধিকারীকে, সরানো হল পদ থেকে

দিঘা -শঙ্করপুর উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যানের পদ থেকে অপসারিত শিশিরবাবু

শুভেন্দু অধিকারীর বিজেপি যোগদানের পর থেকেই কাঁথির অধিকারী পরিবারের সঙ্গে ক্রমশ দূরত্ব তৈরি হচ্ছিল তৃণমূলের। ছেলে সৌমেন্দুর পর এবার বিশেষ পদ থেকে সরানো হল বাবা শিশির অধিকারীকেও।

দিঘা -শঙ্করপুর উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যানের পদ থেকে সরানো হয়েছে এই বর্ষীয়ান তৃণমূল সাংসদকে। তাঁর জায়গায় ওই পদে বসানো হয়েছে অধিকারী পরিবারের প্রবল প্রতিপক্ষ হিসেবে পরিচিত অখিল গিরিকে।
দিঘা- শঙ্করপুর উন্নয়ন পর্ষদ (DSDA)- এর নতুন চেয়ারম্যান অখিল গিরির দাবি, কয়েক মাস ধরে দিঘা- শঙ্করপুর উন্নয়ন পরিষদের কোনও কাজ করছিলেন না প্রাক্তন চেয়ারম্যান৷ কোনও বৈঠকেও হাজির হননি তিনি। তাই এই পদক্ষেপ করেছে তৃণমূল নেতৃত্ব। এদিকে এই সিদ্ধান্ত নিয়ে তিনি কিছুই জানেন না বলে দাবি শিশিরবাবুর। রামনগরের বিধায়ক অখিলবাবুর অবশ্য দাবি, কোনও পরিবারের ওপর ব্যক্তিগত আক্রোশ থেকে এই পদক্ষেপ নয়।

কিছুদিন আগে কাঁথি পুরসভার পুরপ্রশাসকের পদ থেকে শিশির-পুত্র সৌমেন্দু অধিকারীকে সরিয়ে বসানো হয় অখিল ঘনিষ্ঠ সিদ্ধার্থ মাইতিকে। তখনই অধিকারী পরিবারের তরফে নিশানা করা হয় অখিল গিরিকে। বলা হয়, তাঁর কলকাঠিতেই সৌমেন্দুকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। এর পর অবশ্য দাদা শুভেন্দু অধিকারীর হাত ধরে কাঁথির সভায় বিজেপিতে যোগ দেন সৌমেন্দু।

এর মধ্যে উত্তরবঙ্গ সফরে গিয়ে তৃণমূল সাংসদ অভিষেক ব্যানার্জির তীব্র আক্রমণের মুখে পড়েন শুভেন্দু অধিকারী। তাঁর মন্তব্য ছিল, শুভেন্দু ‘উপসর্গহীন বেইমান’। নিজে বিজেপিতে যাওয়ার পর পরিবারের বাকিদের ‘আইসোলেশন’- এ পাঠিয়েছেন। এতে তাঁদের বুঝতে সুবিধা হয়েছে বলে মন্তব্য করেন অভিষেক। এই প্রেক্ষিতে শিশির অধিকারীর অপসারন বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

Comments
Loading...