এয়ার স্ট্রাইকে মৃত্যু ক’জন জঙ্গির? ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কী? সংসদের স্ট্যান্ডিং কমিটির প্রশ্নের মুখে বিদেশ সচিব

বালাকোটের জৈশ-ই-মহম্মদ শিবিরে মিরাজ হামলায় ঠিক কত জঙ্গির মৃত্যু হয়েছে, ক্ষয়ক্ষতি কত, তা নিয়ে এখনও কোনও সঠিক তথ্য দেয়নি কেন্দ্র। আর তার জেরে ছড়িয়ে পড়ছে একের পর এক বিভ্রান্তিকর তথ্য। এবার কেন্দ্রের কাছে সেই তথ্য প্রমাণ প্রকাশ্যে আনার দাবি জানাল সংসদের বিদেশ বিষয়ক স্ট্যান্ডিং কমিটি।

শুক্রবার বিদেশ সচিব বিজয় গোখলে এবং মন্ত্রকের অন্যান্য সিনিয়র অফিসারদের সঙ্গে বসে সংসদের বিদেশ বিষয়ক স্ট্যান্ডিং কমিটি। যে কমিটির চেয়ারম্যান সাংসদ শশী থারুর। সেখানে বিদেশ মন্ত্রকের তরফে সদস্যদের গোটা ঘটনা সম্পর্কে অবহিত করা হয়। আরও বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বলার কথা থাকলেও বৈঠকে বিদেশ সচিব মূলত পুলওয়ামা হামলা ও তার খুঁটিনাটি নিয়েই কথা বলেন বলে সূত্রের খবর।

বিদেশ সচিব প্যানেলকে ২৬শে ফেব্রুয়ারির এয়ার স্ট্রাইকের প্রয়োগগত তথ্য দিতে অস্বীকার করেন। সূত্রের খবর, তিনি বলেন, এই তথ্য দেওয়া তাঁর এক্তিয়ারের বাইরে। কমিটি সূত্রে জানা গিয়েছে, বিদেশ সচিব এয়ার স্ট্রাইকে মৃত্যু হওয়া জঙ্গিদের সম্ভাব্য সংখ্যা জানাতেও অস্বীকার করেন। স্ট্যান্ডিং কমিটির সদস্যরা ভারতীয় বায়ুসেনার বিমান হানার ভূয়সী প্রশংসা করলেও, যেভাবে আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে উল্টে ভারতকেই কাঠগড়ায় দাঁড় করানো হচ্ছে তা নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেন।

বৈঠকে যোগ দেওয়া এক বিরোধী নেতা জানিয়েছেন, ‘আন্তর্জাতিক মহল দাবি করছে, আমাদের হামলার কোনও প্রভাবই নাকি পড়েনি। শিবিরগুলো আগে থেকেই সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল এবং কোনও প্রাণহানি হয়নি। এর মাধ্যমে আমাদের সেনার বীরত্বকেই ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা হচ্ছে। আমরা বিদেশ সচিবকে বলেছি, এই ভ্রান্ত ও অপপ্রচারের মোকাবিলা সত্যি তথ্য ও প্রমাণ দিয়েই করতে হবে।‘

বিজয় গোখলে কমিটিকে জানান, আন্তর্জাতিকস্তরে যাতে ভুল বার্তা না যায় তা দেখার কাজ চলছে। বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ অর্গানাইজেশন অফ ইসলামিক কো-অপারেশনের (ওআইসি) বৈঠকে যোগ দিয়েছেন এবং তিনি জানিয়েছেন, সেখানে প্রায় সমস্ত ইসলামিক রাষ্ট্র ভারতের পাশে আছে বলেও কমিটির সদস্যদের কাছে দাবি করেছেন বিদেশ সচিব, বলে সূত্রের খবর।

Comments
Loading...