NHRC’র রিপোর্টের কড়া জবাব রাজ্যের; কমিশনের সদস্যদের নাম ধরে ধরে বিজেপি ঘনিষ্ঠতার প্রমান পেশ হাইকোর্টে

রাজ্যের ভোট পরবর্তী হিংসার ঘটনায় জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের রিপোর্টের এবার কড়া জবাব দিল নবান্ন।

হাইকোর্টে রাজ্য সরকার সাফ জানায়, NHRC এর প্রতিনিধি দলের সদস্যরা পক্ষপাতদুষ্ট। দলের সদস্যরা বিজেপি বা কেন্দ্রীয় সরকার ঘনিষ্ঠ। রাজ্যের আরও অভিযোগ, বেছে বেছে সদস্য নির্বাচন করা হয়েছে রাজ্যের বিরুদ্ধে রিপোর্ট তৈরি করার জন্য। মিথ্যা সাক্ষী জোগাড় করতে রাজ্যের একাধিক জায়গায় ঘুরে বেরিয়েছে মানবাধিকার কমিশনের প্রতিনিধিরা। এবং কমিশনের সদস্যদের থাকা খাওয়ার জন্য রাজ্যের প্রায় ৮ লক্ষ টাকা খরচ হয়েছে বলেও আদালতে দাবি করেন রাজ্যের আইনজীবী।

কমিশনের সদস্যদের নাম ধরে ধরে নথি দিয়ে তাঁদের সঙ্গে বিজেপি ঘনিষ্ঠতার অভিযোগ তোলে রাজ্য সরকার। রাজ্যের অভিযোগ অনেক সদস্যই বিজেপি অথবা কেন্দ্রীয় সরকার দ্বারা প্রভাবিত।

কমিশনের সদস্য আতিফ রশিদ বিজেপির ট্যুইটার হ্যান্ডেলের দায়িত্বে ছিলেন, এমনকী তিনি দিল্লির পুরো ভোটে বিজেপির হয়ে লড়েছেন। অপর সদস্য রাজীব জৈন বিজেপির আমলে আইবির ডিরেক্টর হিসেবে কাজ করেছেন। নরেন্দ্র মোদী মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন গুজরাট সরকারের ইন্টেলিজেন্স ব্যুরোর ডিরেক্টর ছিলেন। তাঁর চাকরির মেয়াদও বাড়ানো হয়। কমিশনের আরেক সদস্য বিজেপির বেটি বাঁচাও বেটি পড়াও প্রকল্পের দায়িত্বে ছিলেন বলেও হলফনামায় দাবি করে রাজ্য সরকার।

উল্লেখ্য গত ১৫ জুলাই মানবধিকার কমিশনের প্রতিনিধি দল রাজ্যের ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে একটি দীর্ঘ রিপোর্ট হাইকোর্ট জমা দেয়। যে রিপোর্টের ছত্রে ছত্রে রাজ্যের আইন শৃঙ্খলার তীব্র সমালোচনা করা হয়। সেই সঙ্গে তৃণমূলের একাধিক নেতা মন্ত্রীকে কুখ্যাত দুষ্কৃতী বলে আখ্যা দেওয়া হয়। সিবিআই দিয়ে সমস্ত হিংসার ঘটনার তদন্তের সুপারিশও করা হয় রিপোর্টে।

Comments
Loading...