ত্রিশঙ্কু পরিস্থিতিতে তৃণমূলকে সমর্থন, জানালেন কংগ্রেস সাংসদ আবু হাসেম

সাম্প্রদায়িক বিজেপিকে রুখতে প্রয়োজনে তৃণমূলকে সমর্থন। বলছেন মালদা দক্ষিণ কেন্দ্রের কংগ্রেস সাংসদ আবু হাসেম খান চৌধুরী (ডালু)। পাশাপাশি জানান, ভোটের পর যদি এমন পরিস্থিতি তৈরী হয়, যেখানে তৃণমূল ও বিজেপির মধ্যে এক দলকে বেছে নিতে হয়, আমি তৃণমূলকেই বেছে নেব। তাঁর দাবি, বিজেপি ধর্মের নামে দেশ বিক্রি করে দিতে চাইছে। তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দেন তাঁর দল যে কোনও ধরনের সাম্প্রদায়িকতার বিরোধী।

[আরও পড়ুন- Mamata: কলকাতায় বসে চক্রান্ত করছেন অমিত শাহ, বলে দিচ্ছেন কাকে গ্রেফতার করতে হবে!]

মালদায় নিজের বাড়িতে সাংবাদিকদের কাছে আইএসএফের জোট প্রসঙ্গে তিনি জানিয়েছেন, সিপিএম আইএসএফের সঙ্গে হাত মিলিয়েছে। কিন্তু কংগ্রেস কখনওই সমর্থন করেনি। জোট আগেই হয়ে গিয়েছিল বলেই এখনও সংযুক্ত মোর্চায় আছেন। তিনি জানান, বিজেপি আর আইএসএফের কোনও পার্থক্য নেই। বামেরা ভয় পেয়েছে, ভাবছে একটাও ভোট পাবে না। তাই আব্বাসের কাঁধে ভর করে কিছু ভোট টানতে চাইছে।

আবু হাসেম খান চৌধুরীর এই মন্তব্যের পর রাজনীতিতে নতুন জল্পনা তৈরি হয়েছে। অনেকেই বলেছেন, তবে কি ভোট পরবর্তী পরিস্থিতিতে সংযুক্ত মোর্চা ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেবেন আবু হাসেম খান চৌধুরী?

বাম-কংগ্রেস জোটের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে আব্বাস সিদ্দিকির আইএসএফ। বাম-কং এবং আব্বাস সিদ্দিকির আইএসএফকে সঙ্গে নিয়ে সংযুক্ত ফ্রন্ট তৈরি হয়েছে। ডালুবাবুর এই মন্তব্যের পর সিপিএমের মালদা জেলা সম্পাদক অম্বর মিত্র বলেন, একজন বর্ষীয়ান নেতা কেন একথা বলছেন বুঝতে পারছি না। রাজ্যে বাম-কংগ্রেস এবং আইএসএফের জোট লড়াই করবে।

Comments
Loading...