রাজ্য কমিটির মিটিংয়ে তীব্র সমালোচনা তন্ময় ভট্টাচার্যের, ‘উনি বিধায়ক হিসেবে ভাল কাজ করছেন, এলাকায় জনপ্রিয়ও’, পাশে দাঁড়ালেন সূর্যকান্ত মিশ্র

‘রাজনীতিতিতে অস্পৃশ্যতা বলে কিছু নেই, ইস্যু ভিত্তিক আন্দোলন তৃণমূলের সঙ্গেও করা যেতে পারে’, এ কথা বলে সম্প্রতি সিপিএমের অন্দরে তীব্র বিতর্কের সূত্রপাত করেছেন বিধায়ক তন্ময় ভট্টাচার্য। সিপিএম বিধায়কের এই বক্তব্য গোটা রাজ্যেরই সিপিএম নেতাদের মধ্যে তীব্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি করে। তন্ময় ভট্টাচার্যর এই বক্তব্যকে দলীয় লাইন বিরোধী বলে উল্লেখ করে রে রে করে উঠেছিলেন বহু সিপিএম নেতা। এবার সেই ইস্যুতে তন্ময় ভট্টাচার্যকে কার্যত ক্লিন চিট দিল আলিমুদ্দিন স্ট্রিট।
২৩ এবং ২৪ শে জুলাই দু’দিনব্যাপী রাজ্য কমিটির মিটিংয়ে অধিকাংশ জেলার সিপিএম নেতা তীব্র ভাষায় তন্ময় ভট্টাচার্যের সমালোচনা করেন। এই সিপিএম বিধায়কের সবচেয়ে বেশি সমালোচনা করেছেন তাঁর নিজের জেলারই দুই রাজ্য কমিটির সদস্য সুভাষ মুখোপাধ্যায় এবং নেপালদেব ভট্টাচার্য। কিন্তু সব শেষে জবাবি ভাষণে রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র এই ইস্যুতে বিশেষ কড়া অবস্থান না নিয়ে বরং তন্ময় ভট্টাচার্যের প্রশংসাই করেন।
সূর্যকান্ত মিশ্র বলেন, তন্ময় ভট্টাচার্য ভাল বক্তৃতা করেন। এলাকায় জনপ্রিয়ও। বিধায়ক হিসেবেও ভাল কাজ করছেন। তিনি কী বলেছেন তা উত্তর ২৪ পরগনা জেলা নেতৃত্বকে দেখতে বলা হয়েছে। তাঁরা তন্ময় ভট্টাচর্যের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা বলবেন।
সাম্প্রতিক রাজ্য কমিটির মিটিংয়ে বিধায়ক তন্ময় ভট্টাচার্য এবং পশ্চিম মেদিনীপুরের নেতা ও প্রাক্তন বিধায়ক সুশান্ত ঘোষকে নিয়ে তীব্র বিতর্ক হয়। রাজ্য কমিটির অন্তত ১০-১২ জন সদস্য তন্ময় ভট্টাচার্যের সমালোচনা করেন। তাঁদের মধ্যে সবচেয়ে সরব ছিলেন উত্তর ২৪ পরগনার সদস্য এবং সিটুর রাজ্য নেতা সুভাষ মুখোপাধ্যায় ও নেপালদেব ভট্টাচার্য। তন্ময় ভট্টাচার্য তৃণমূলকে নিয়ে যে কথা বলেছেন তাতে দলের মধ্যে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছে এবং এই কথা বলার জন্য কেন তাঁকে শাস্তি দেওয়া হবে না, এই প্রশ্ন তোলেন তাঁরা। পাশাপাশি, আরও একাধিক সদস্যও বিধায়ক তন্ময় ভট্টাচার্যের তীব্র সমালোচনা করেন। একইভাবে এই মিটিংয়ে সুশান্ত ঘোষেরও সমালোচনা করেন ৩-৪ জন রাজ্য কমিটির সদস্য।
সূত্রের খবর, মিটিংয়ে সব শেষে জবাবি ভাষণে সূর্যকান্ত মিশ্র পশ্চিম মেদিনীপুরের নেতা সুশান্ত ঘোষ সম্পর্কে কড়া অবস্থান নিলেও, তন্ময় ভট্টাচার্য সম্পর্কে যথেষ্টই নরম মনোভাব দেখান। সুশান্ত ঘোষ সম্পর্কে রাজ্য সম্পাদক বলেন, ‘সুশান্ত যা লিখেছেন (thebengalstory.com এ ) তা বহিষ্কার যোগ্য অপরাধ।’ কিন্তু তন্ময় ভট্টাচার্য সম্পর্কে সূর্যকান্ত মিশ্র বলেন, তন্ময় ভট্টাচার্য কী বলেছেন তা উত্তর ২৪ পরগনার নেতৃত্বের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল। তিনি (তন্ময় ভট্টাচার্য) ভাল বক্তৃতা করেন, এলাকায় জনপ্রিয়। বিধায়ক হিসেবেও ভাল কাজ করছেন। তাঁর সঙ্গে জেলা নেতৃত্বকে কথা বলতে বলা হয়েছে।
প্রসঙ্গত, গত আট বছর ধরেই তীব্র তৃণমূল বিরোধী অবস্থান আলিমুদ্দিন স্ট্রিটের। এমনকী রাজ্যে বিজেপির উত্থানের পরও এই দু’দলকে সমান গুরুত্ব দিয়েই রাজনৈতিক লাইন ঘোষণা করেছে আলিমুদ্দিন স্ট্রিট। এই পরিস্থিতিতে ‘রাজনীতিতে অস্পৃশ্যতা বলে কিছু হয় না এবং নির্দিষ্ট ইস্যুতে কোনও পরিস্থিতিতে তৃনমূলের সঙ্গেও আন্দোলন করা যেতে পারে বলে দলের মধ্যে নয়া বিতর্কের জন্ম দিয়েছেন বিধায়ক তন্ময় ভট্টাচার্য। রাজ্যের পরিবর্তিত রাজনৈতিক পরিস্থিতিতে তাঁর এই বক্তব্যের পর সিপিএমের অন্দরের বিতর্ক কোন দিকে মোড় নেয়, সেদিকেই এখন তাকিয়ে দলের একটা বড় অংশ।

Comments
Loading...