যতই ইডি সিবিআই লেলিয়ে দাও, মেরুদণ্ড বাঁকা হবে না, রুজিরা কাণ্ডে তোপ অভিষেকের  

অভিষেকঃ আমার জেদ বাংলা থেকে বহিরাগতদের বিতারণ

মঙ্গলবার সিবিআই অফিসারেরা বাড়ি গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করেছিলেন রুজিরা ব্যানার্জিকে। আর বৃহস্পতিবার, জনসভায় দাঁড়িয়ে যুব তৃণমূল সভাপতির ঘোষণা, সিবিআই, ইডি যা খুশি লাগিয়ে দিন, আমার গলা কেটে দিলেও সেই গলা থেকে জয় বাংলা বেরোবে। পাশাপাশি অমিত শাহদের তোপ, আপনার জেদের থেকে দ্বিগুন জেদ আমার। আপনাদের জেদ বহিরাগত দিয়ে বাংলা দখল, আর আমার জেদ বাংলা থেকে বহিরাগতদের বিতারণ, সভা স্থল থেকে হুংকার অভিষেকের। 

জয় হরি চাঁদ, জয় গুরু চাঁদ স্লোগান তুলে অভিষেক একের পর এক বাক্য বাণে বিদ্ধ করেন গেরুয়া শিবিরকে। কদিন আগে ঠাকুরনগরে এসে অমিত শাহ বলেছিলেন, টীকাকরন শেষ হলেই মতুয়াদের নাগরিকত্ব দেওয়ার কাজ শুরু হবে। এদিন অভিষেকের জবাব, ১৩০ কোটির দেশে সবাইকে টীকা দিতে সময় লাগবে ৮ থেকে ১০ বছর। নাগরিকত্বের নামে ভাঁওতাবাজি করছে  বিজেপি, দাবি অভিষেকের। পাশাপাশি তিনি নরেন্দ্র মোদীকে তীব্র আক্রমণ করে বলেন, যদি মতুয়ারা অবৈধ নাগরিক হন, তবে তাঁদের ভোটে জিতে আসা প্রধানমন্ত্রীও অবৈধ।

[আরও পড়ুন- ‘লক্ষ্য সোনার বাংলা’ গণ মতামত নিতে ২৯৪টি বিধানসভায় বিজেপির ডিজিটাল ভ্যান] 

রাজ্য সফরে এসে বিজেপি নেতারা সাধারণ মানুষের বাড়িতে গিয়ে খাওয়া দাওয়া করছেন, এদিন সেই প্রসঙ্গে অভিষেকের কটাক্ষ, দিনের বেলায় বস্তি, আর রাতের বেলা ফাইভ স্টার হোটেলে মস্তি। 

তৃণমূলের জয় বাংলা স্লোগান বাংলা দেশের স্লোগান বলে একাধিক জনসভা থেকে অভিযোগ করছেন বিজেপি নেতারা, এদিন অভিষেকের পালটা প্রশ্ন,  যদি জয় বাংলা বাংলাদেশের স্লোগান হয়, তাহলে সোনার বাংলা কোথাকার স্লোগান? আগের জনসভার মত এদিনও স্বাস্থ্যসাথী ও আয়ুষ্মান ভারতের তুলনা টেনে বিজেপিকে আক্রমণ করেন অভিষেক। নরেন্দ্র মোদীর নামে ক্রিকেট স্টেডিয়ামের নামকরণ নিয়েও এদিন কটাক্ষ করেন অভিষেক ব্যানার্জি।                                     

Comments
Loading...