TMC: দলত্যাগীরা আস্তাবলের বাতিল ঘোড়া, দুয়ারে সরকারের সাফল্যে মানসিক ভারসাম্য হারিয়েছে BJP

তৃণমূলত্যাগী বিজেপি নেতাদের নিয়ে কী বলছে তৃণমূল?

বাংলার ভোট যত এগোচ্ছে, ততই বৃদ্ধি পাচ্ছে দলবদলুদের সংখ্যা। এই তৃণমূলত্যাগী বিজেপি নেতাদের তীব্র কটাক্ষ করলেন সুখেন্দু শেখর রায়। শুক্রবার তৃণমূল ভবনে সাংবাদিক বৈঠকে দলের জাতীয় মুখপাত্র তথা রাজ্যসভার মুখ্য সচেতক সুখেন্দু শেখর রায়ের মন্তব্য, আস্তাবলের বাতিল কিছু ঘোড়া অন্য কোথাও চলে যাচ্ছে। কিছু লোক আবার সকালে গিয়ে বিকেলে ফিরে আসছেন। আগমন, প্রত্যাগমন ঘটতেই থাকে রাজনীতিতে। এঁরাও তেমন কিছুই করছেন। তৃণমূলের জাতীয় মুখপাত্রের আরও মন্তব্য, দিকশূন্য ভাবে কিছুজন অন্য দলে চলে যাচ্ছেন। কেউ আবার ভুল বুঝে ফিরেও আসছেন। তিনি যোগ করেন, কিছু নেতার বিরুদ্ধে আর্থিক মামলা থাকাতেও তাঁরা বিজেপিতে যাচ্ছেন। তাঁর কথায়, ‘একটা ছড়া চলছে খুব, যদি যেতে না চাও জেলে, চলে এসো আমার দলে।’

শুভেন্দু অধিকারীর বিজেপিতে যাওয়ার পর এবার মন্ত্রী রাজীব ব্যানার্জি ও সাংসদ শতাব্দী রায়ের দলবদল নিয়ে জোর জল্পনা চলছে। যদিও এনিয়ে সরাসরি কোনও মন্তব্য করতে চাননি সুখেন্দু শেখর। বলেন, দেশে সবারই ব্যক্তিগত সিদ্ধান্ত নেওয়ার অধিকার আছে। তবে শুভেন্দু ঘনিষ্ঠ হলদিয়া পুরসভার চেয়ারম্যান শ্যামল আদকের ইস্তফা নিয়ে ‘আস্তাবলের বাতিল ঘোড়া’র উপমা ব্যবহার করেন সুখেন্দু শেখর রায়।

তাঁর আরও দাবি, ‘দুয়ারে সরকার’ মতো মমতার সরকারের অভিনব কর্মসূচির সাফল্য দেখে মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেছে কেন্দ্রের শাসক দল। তাই সোশ্যাল সাইটগুলিতে তারা বিভ্রান্তিকর, অপপ্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। সুখেন্দু শেখরের কটাক্ষ, ওদের (বিজেপি) নিজেদের কোনও কর্মসূচি নেই যা নিয়ে মানুষের দরবারে পৌঁছনো যায়। মমতার সরকার গত কয়েক বছর কী উন্নয়ন করেছে ইতিমধ্যে তার রিপোর্ট কার্ড প্রকাশ করেছে। অন্যদিকে বিজেপির অস্ত্র কেবল কুৎসীত অপপ্রচার ও তৃণমূলকে গালিগালাজ করা।

 

Comments
Loading...