দেশজুড়ে বড়সড় নাশকতার ছক বানচাল, NIA এর জালে ধরা পড়ল ৯ আল কায়দা জঙ্গি। যাদের মধ্যে ৬ জনই ধরা পড়ল এ রাজ্যের মুর্শিদাবাদ থেকে। অন্য ৩ জনকে পাকড়াও করা হয়েছে কেরলের এর্নাকুলাম থেকে।

জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা সূত্রে জানা গিয়েছে, রাজধানী দিল্লি ছাড়াও বেশ কয়েকটি বড় শহরে হামলার ছক কষছিল জঙ্গিরা। ‘লোন উলফ কায়দা’য় হামলার ছক ছিল বলে NIA গোয়েন্দাদের দাবি।

গোপন সূত্রে খবর পেয়ে কেরলের এর্নাকুলাম ও পশ্চিমবঙ্গের মুর্শিদাবাদ জেলার ১১টি জায়গায় তল্লাশি অভিযান চালান NIA এর তদন্তকারী অফিসাররা। তাতে পশ্চিমবঙ্গ থেকে ছয় জন ও কেরল থেকে তিন জন আল কায়দা জঙ্গি গ্রেফতার হয়। ধৃতদের মধ্যে আবু সুফিয়ান, নাজমাস সাকিব ও মনিউল মণ্ডল, লিউ ইয়ান আহমেদ, মামুন কামাল ও আতিউর রহমানকে মুর্শিদাবাদের ধুলিয়ান থেকে ধরা হয়। এরা সবাই মুর্শিদাবাদের বাসিন্দা বলেই জানা যাচ্ছে। এর্নাকুলাম থেকে গ্রেফতার হয়েছে মুর্শিদ হাসান, ইয়াকুব বিশ্বাস ও মোশারফ হোসেন।

তাদের মধ্যেও দু’জন আবার এ রাজ্যের মুর্শিদাবাদেরই বাসিন্দা বলে দাবি করেছে NIA। জঙ্গিদের গোটা নেটওয়ার্ক চলছিল মুর্শিদাবাদ থেকে। ধৃতদের পাক যোগ পাওয়া গিয়েছে বলেও জানা গিয়েছে। পাশাপাশি ধৃতদের কাছ থেকে বেশ কিছু নথি, ডিজিটাল ডিভাইস, দেশি পিস্তল, ধারালো অস্ত্র, বোমা তৈরির সরঞ্জাম ও জেহাদি বই উদ্ধার হয়েছে। প্রাথমিকভাবে জঙ্গিদের জেরা করে জানা গিয়েছে যে, সোশ্যাল মিডিয়ায় ধৃতদের মগজধোলাই করেছিল পাকিস্তানের আল কায়দা জঙ্গিরা। রাজধানী সহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে হামলা চালানোর জন্য তাদের উদ্বুদ্ধও করা হয়েছিল। NIA জানিয়েছে, ওই মডিউলের সদস্যরা টাকা তুলছিল এবং অস্ত্র ও গোলা-বারুদের জন্য কয়েকজন জঙ্গি দিল্লি যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিল। এই গ্রেফতারির ফলে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে সম্ভাব্য জঙ্গি হামলার ছক রুখে দেওয়া গিয়েছে বলে দাবি করেছে NIA।

ধারাবাহিকভাবে পাশে থাকার জন্য The Bengal Story র পাঠকদের ধন্যবাদ। আমরা যে ধরনের খবর করি, তা আরও ভালোভাবে করতে আপনাদের সাহায্য আমাদের উৎসাহিত করবে।

Login Support us

You may also like

Deputy Speaker Body
Manish Shukla Murder