রায়ের আগে অর্ণব গোস্বামীকে গ্রেফতার করা যাবে না, জানাল সুপ্রিম কোর্ট

আপাতত স্বস্তি, চূড়ান্ত রায়ের আগে পর্যন্ত অর্ণব গোস্বামীকে গ্রেফতার করা যাবে না, জানাল  সুপ্রিম কোর্ট।
মহারাষ্ট্রের পালঘর গণপিটুনি নিয়ে রিপাবলিক টিভিতে খবর পরিবেশনের সময় কংগ্রেস নেত্রী সোনিয়া গান্ধী সম্পর্কে অবমাননাকর মন্তব্য করার অভিযোগ ওঠে অর্ণব গোস্বামীর বিরুদ্ধে। এই পরিপ্রেক্ষিতে রিপাবলিক টিভির সম্পাদক ও সাংবাদিক অর্ণবের বিরুদ্ধে মামলা করে কংগ্রেস। সোমবার এই মামলার দ্বিতীয় শুনানিতে অর্ণবকে অন্তর্বর্তীকালীন সুরক্ষা দিল সুপ্রিম কোর্ট। পাশাপাশি, গত ১৪ এপ্রিল লকডাউনের মধ্যে বান্দ্রা রেল স্টেশনে অভিবাসী শ্রমিকদের জড়ো হওয়ায় ঘটনায় অর্ণবের বিরুদ্ধে যে মিথ্যে খবর সম্প্রচায়ের অভিযোগে মুম্বই পুলিশ মামলা দায়ের করে, তাতেও স্থগিতাদেশ দিয়েছে শীর্ষ আদালত।
তবে মুম্বই পুলিশের হাত থেকে সিবিআই-এর হাতে মামলার ভার তুলে দেওয়ার যে আবেদন জানান অর্ণব, তাতে স্থগিতাদেশ দেয় বিচারপতি ডি ওয়াই চন্দ্রচূড় ও এমআর শাহের ডিভিশন বেঞ্চ।
এদিন তাঁর বিরুদ্ধে দায়ের হওয়া মামলা খারিজের আবেদন জানিয়ে অর্ণব গোস্বামী বলেন, এইসব এফআইআর রাজনৈতিক প্রভাবিত এবং মুম্বই পুলিশ তাঁকে ইচ্ছাকৃতভাবে হেনস্থা করতে চাইছে।
সোমবার মামলার শুনানিতে অর্ণবের আইনজীবী হরিশ সালভে সওয়াল করেন, এই এফআইআর আসলে ক্ষমতার অপপ্রয়োগ। দেশে লকডাউনের মধ্যে দীর্ঘ ১২ ঘণ্টা সাংবাদিক অর্ণব গোস্বামীকে মুম্বই পুলিশের জিজ্ঞাসাবাদ অনুচিত ছিল বলে মন্তব্য করেন তিনি। সেদিন অর্ণব গোস্বামীকে জিজ্ঞাসাবাদ করা এক পুলিশ অফিসার করোনায় আক্রান্ত বলে অভিযোগ করেন তাঁর আইনজীবী। পাশাপাশি, পুলিশের এই পদক্ষেপ সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতায় হস্তক্ষেপ বলেও সওয়াল করেন আইনজীবী সালভে। তিনি জানান, সংবাদ সম্প্রচারে কোনও নিউজ চ্যানেলের সিইও-র কোনও ভূমিকা থাকে না। তা সত্ত্বেও রিপাবলিক টিভি চ্যানেলের সিইও’কে দীর্ঘ ৬ ঘন্টা জিজ্ঞাসাবাদ চালায় পুলিশ।
কংগ্রেসের মামলা দায়েরের ভিত্তিতে পুলিশ যেভাবে তদন্ত চালাচ্ছে তার প্রক্রিয়া নিয়ে প্রশ্ন তোলেন অর্ণবের আইনজীবী।
এদিকে মহারাষ্ট্রের শিবসেনা-কংগ্রেস-এনসিপি জোট সরকার আগেই আদালতে অভিযোগ করেছে, তদন্তকারীদের প্রভাবিত করার চেষ্টা করছেন অর্ণব গোস্বামী। এদিন মহারাষ্ট্র সরকারের তরফে আইনজীবী কপিল সিব্বল বলেন, বিভিন্ন ঘটনাকে রগরগে করে দেখানোর চেষ্টা করেন অর্ণব। এই সাম্প্রদায়িক প্রচার প্রক্রিয়া বন্ধ হওয়া উচিত। তবে এ অভিযোগ সম্পূর্ণ অস্বীকার করে অর্ণব জানান, তাঁদের রিপাবলিক টিভি চ্যানেলই প্রথম সত্য খবর তুলে ধরে। রাজনৈতিক প্রভাবিত বিশেষ করে কংগ্রেস নেতারা লকডাউনের মধ্যে যে ভুয়ো খবর ছড়ানোর চেষ্টা করেন এবং মুম্বইয়ে লকডাউন ভেঙে হিংসার পরিস্থিতি তৈরি করে তা তুলে ধরেছে রিপাবলিক টিভি।
সওয়াল জবাব শেষে অর্ণবের অন্তর্বতীকালীন সুরক্ষা বাড়ানোর নির্দেশ দেয় সুপ্রিম কোর্ট। গত ২৪ এপ্রিল সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছিল, অর্ণব গোস্বমীর বিরুদ্ধে তিন সপ্তাহ কোনও দমনমূলক পদক্ষেপ করতে পারবে না পুলিশ প্রশাসন।

Comments
Loading...