৪ হাজার ক্লার্ক নিচ্ছে রাজ্য সরকার, জানুয়ারিতে পরীক্ষা পিএসসি’র

রাজ্য সরকারের বিভিন্ন দফতরে ৪ হাজার ক্লার্ক নিয়োগের পরীক্ষা (clerkship exam) হচ্ছে আগামী জানুয়ারি মাসের মধ্যে। পরীক্ষা নিচ্ছে পাবলিক সার্ভিস কমিশন (পিএসসি)।
গত ২২ ফেব্রুয়ারি এই ক্লার্কশিপ পরীক্ষার বিজ্ঞাপন দেয় পাবলিক সার্ভিস কমিশন। আবেদন জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ছিল ২৫ মার্চ। কিন্তু রাজ্য সরকারের তরফে করণিক নিয়োগের পরীক্ষা আয়োজনের বিষয়ে কমিশনকে সুস্পষ্ট নির্দেশ না দেওয়ায় প্রায় ১০ মাস এই পরীক্ষার ভাগ্য ঝুলে ছিল। অবশেষে নবান্নের তরফে সবুজ সঙ্কেত আসার পর পিএসসি’র তরফে পরীক্ষা নেওয়ার প্রস্তুতি শুরু হয়েছে।
রাজ্যের বিভিন্ন সরকারি দফতরে প্রায় চার হাজার শূন্যপদ পূরণের জন্য এই পরীক্ষা হতে চলেছে। এর জন্য প্রায় সাড়ে সাত লক্ষ আবেদন জমা পড়েছে। প্রার্থীর যোগ্যতামান ছিল ন্যূনতম মাধ্যমিক পাশ, কম্পিউটারে বেসিক জ্ঞান এবং বাংলা, ইংরেজি টাইপিংয়ের দক্ষতা। পিএসসি-র চেয়ারম্যান দেবাশিস বসু জানিয়েছেন, ২০২০ সালের জানুয়ারি মাসের শেষের দিকে ক্লার্কশিপ পরীক্ষা নেওয়া হবে। সেইমতো প্রস্তুতিও শুরু করে দিয়েছে পাবলিক সার্ভিস কমিশন কর্তৃপক্ষ।
মোট দুটি পর্যায়ে নেওয়া হবে এই পরীক্ষা (clerkship exam)। প্রথমে মাল্টিপল চয়েস ভিত্তিক ১০০ নম্বরের লিখিত পরীক্ষা হবে। দেড় ঘণ্টার এই পরীক্ষায় ইংরেজি ও পাটিগণিতে থাকছে ৬০ নম্বর। বাকি ৪০ টি প্রশ্ন থাকছে জেনারেল স্টাডিজ থেকে। এই পরীক্ষায় পাশ করলে প্রার্থীরা দ্বিতীয় পর্বের মূল্যায়নে ডাক পাবেন। সেখানে ৫০ নম্বরের ইংরেজি ও ৫০ নম্বরের বাংলার ( হিন্দি, উর্দু, নেপালি, সাঁওতালি) পরীক্ষা নেওয়া হবে। এরপর কম্পিউটার টাইপিং টেস্টের মাধ্যমে সফল প্রার্থীদের বেছে নেওয়া হবে। এক মিনিটে ইংরেজিতে ২০ টি এবং বাংলায় ১০ টি শব্দ টাইপ করতে বলা হবে তাঁদের। দুই লিখিত পরীক্ষা এবং টাইপিং টেস্টের নম্বর মিলিয়ে তৈরি হব মেধা তালিকা।
পরীক্ষার জন্য রাজ্যজুড়ে ২৭টি কেন্দ্র চিহ্নিত করেছে পাবলিক সার্ভিস কমিশন। এগুলি হল– কলকাতা উত্তর, কলকাতা দক্ষিণ, বারুইপুর, ডায়মন্ডহারবার, বারাকপুর, বারাসত, কৃষ্ণনগর, হাওড়া, চুঁচূড়া, বর্ধমান, আসানসোল, পুরুলিয়া, মেদিনীপুর, তমলুক, ঝাড়গ্রাম, বাঁকুড়া, সিউড়ি, বহরমপুর, মালদহ, বালুরঘাট, রায়গঞ্জ, জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার, কোচবিহার, শিলিগুড়ি, কালিম্পং, দার্জিলিং। প্রায় সাড়ে সাত লক্ষ পরীক্ষার্থীকে সুনির্দিষ্ট কেন্দ্রে পৌঁছনোর বিষয়ে রাজ্যের পরিবহণ দফতর এবং পুলিস-প্রশাসনের সঙ্গে সমন্বয় রেখে কাজ করা হবে বলে জানাচ্ছে পাবলিক সার্ভিস কমিশন কর্তৃপক্ষ।

Comments
Loading...