খাবার প্যাক করতে প্লাস্টিকের বদলে র‍্যাপিং মেটেরিয়াল তৈরি করল মাদ্রাজ IIT, খাবার থাকবে তাজা, কমবে দূষণ

দূষণ রোধ করতে প্রয়োজন প্লাস্টিক মুক্ত পরিবেশ। এদিকে চিপস, চকোলেটের প্যাকেট থেকে যে কোনও প্রক্রিয়াজাত খাবারের প্যাকিংয়ে ব্যবহার হয় প্লাস্টিক। এই সমস্যার মোকাবিলায় যুগান্তকারী আবিষ্কার আইআইটি মাদ্রাজের গবেষক ও পড়ুয়াদের।

তাঁরা এমন এক র‍্যাপিং মেটেরিয়াল উদ্ভাবন করলেন যা একইসঙ্গে দূষণ ও প্লাস্টিক বর্জ্যের সমস্যা থেকে মুক্তি দেবে। এই বিশেষ মোড়ক একদিকে যেমন বায়োডিগ্রেডেবল তেমনি সাধারণ মোড়কের তুলনায় অনেক বেশি ব্যাকটেরিয়া নিরোধকও বটে। বায়োডিগ্রেডেবল ফুড র‍্যাপারে রয়েছে একটি অ্যান্টিব্যাক্টেরিয়াল যৌগ। যা ব্যবহারের জন্য নিরাপদ বলে দাবি করেছেন আইআইটি মাদ্রাজের গবেষকরা। কিছুদিন আগেই এই আবিষ্কারের কথা বিবৃতি দিয়ে জানিয়েছেন তাঁরা।

আইআইটি মাদ্রাজের বায়োটেকনোলজি বিভাগের অধ্যাপক মুকেশ দুবলে ও গবেষক পুজা কুমারীর নেতৃত্বাধীন দল অভিনব র‍্যাপারটি তৈরি করেছেন। স্টার্চ, পলিভিনাইল অ্যালকোহল, সাইক্লিক বিটা গ্লাইকানস (সিবিজি) পলিমারিক মিশ্রণ দিয়ে তৈরি হওয়া এই র‍্যাপারটি ব্যবহারের ২১ দিন পর প্রাকৃতিকভাবে নষ্ট হয়ে যাবে বলে বিবৃতিতে দাবি করা হয়েছে। র‍্যাপারে যে পলিমার ব্যবহৃত হয়েছে তা আমেরিকার ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (FDA) দ্বারা অনুমোদিত বলে জানা গিয়েছে।

এই অ্যান্টিব্যাকটিরিয়াল পলিমার র‍্যাপার মাংস এবং পনির সংরক্ষণে পরীক্ষা করা হয়েছিল। খাবারের নমুনাগুলি ১০ দিন ধরে ৪ থেকে ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় রেখে আশাপ্রদ ফল মিলেছে বলে জানা গবেষকরা।

এই পলিমার মোড়কের উৎপাদন নিয়ে ইতিমধ্যে গুজরাতের এক সংস্থার সঙ্গে আলোচনা চলছে বলে জানান প্রফেসর দুবলে। কত দাম পড়তে পারে তাঁদের এই র‍্যাপারের? প্রফেসর দুবলে জানাচ্ছেন, প্রতি স্কোয়ার ফুট মোড়কের জন্য ২ টাকা খরচ হতে পারে। তবে তাঁরা চেষ্টা করছেন উৎপাদন খরচ কমানোর। আপাতত বিভিন্ন ফুড স্যাম্পেলের মধ্যে এই র‍্যাপার পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে।

Comments
Loading...