দ্বাদশ শ্রেণির পর ভূতত্ত্ব নিয়ে পড়লে মিলতে পারে বিভিন্ন চাকরির সুযোগ

আপনি কি সদ্য ১২ ক্লাস বোর্ডের পরীক্ষায় পাশ করেছেন? কী নিয়ে পড়াশোনা করবেন, এই নিয়ে ভেবে ভেবে আহার নিদ্রা সব বিসর্জন দিয়েছেন? একটু থিতু হয়ে বসুন। ছাত্রছাত্রী ও তাঁদের অবিভাবকদের এই দুশ্চিন্তার কথা মাথায় রেখে বেশ কিছু সময়োপযোগী পাঠ্যক্রম চালু করেছে জেআইএস গ্রুপ অফ ইনস্টিটিউশনস। এই সমস্ত পাঠ্যক্রমের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে জিওলজি নিয়ে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তরের পড়াশোনার সুযোগ।
সময় যত এগোচ্ছে, চাহিদা বাড়ছে জিওলজি বা ভূতত্ত্বের মতো বিষয়ের। ভূতত্ত্ব নিয়ে মানুষের কৌতূহল নতুন কিছু নয়। তার নানা দিক নিয়ে গবেষণাও চলছে বিস্তর। ভূগোল নিয়ে আগ্রহী ছাত্রছাত্রীরাও এই কোর্সটি করে নিজেদের কেরিয়ারে সুফল পেতে পারেন।

জেআইএস-এ একদিকে স্নাতক স্তরে যেমন রয়েছে জিওলজি নিয়ে বিএসসি করার সুযোগ, ঠিক তেমনি রয়েছে অ্যাপ্লায়েড জিওলজি নিয়ে এমএসসি ও পরবর্তীকালে এই বিষয়ের উপর পিএইচডি করারও সুযোগ। এছাড়াও ছাত্রছাত্রীদের জন্য রয়েছে ফিল্ড স্টাডি করার সুযোগ, যা জিওলজিক্যাল সার্ভে অফ ইন্ডিয়ার সহযোগিতায় করানো হয়ে থাকে।
২০১৫ তে মাত্র তিনজন ছাত্র দিয়ে শুরু হওয়া এই পাঠ্যক্রমে জেআইএস-এ আজ শুধুমাত্র স্নাতকস্তরের ছাত্র সংখ্যা ২৮।
এই কোর্সসের দুটি দিক আছে। একদিকে যেমন রয়েছে পড়াশোনা, সেরকমই আর এক দিকে রয়েছে ভূতত্ত্ব নিয়ে কাজ করা বিভিন্ন সংস্থায় নিজেদের নিযুক্ত করার সুবর্ণ সুযোগ। জিএসআই, আইআইটি, আইআইএসইআরের মতো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সেমিনার ও প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করার সুযোগও পাওয়া যায়। সেটা কম কথা নয়। এছাড়াও রয়েছে দাদ (DAAD) জার্মানির মতো ফরেন এক্সচেঞ্জ প্রোগ্রামে অংশগ্রহণ করার সুযোগ। এছাড়াও পড়াশোনা শেষ করে আপনি পেয়ে যেতে পারেন জিএসআই, ওএনজিসি, গেল, সেলের মতো সংস্থায় চাকরির সুযোগ। এছাড়াও খনন নিয়ে কাজ করা বিভিন্ন সংস্থাতেও চাকরির সুযোগ আছে।

বিশদে জানতে এই নম্বরে যোগাযোগ করুনঃ ৯৪৩৩৫০৩১৮৫

Comments
Loading...